রোববার   ২৮ নভেম্বর ২০২১   অগ্রাহায়ণ ১৪ ১৪২৮

অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে তৎপর প্রশাসন

যুগের চিন্তা অনলাইন

প্রকাশিত: ১৮ নভেম্বর ২০২১  

# ২১ নভেম্বর থেকে টানা ৫দিন চলবে অস্ত্র উদ্ধারের বিশেষ অভিযান
# এনায়েতনগরসহ বিভিন্ন স্থানে প্রদর্শিত অস্ত্রগুলোও উদ্ধার হতে পারে

 

অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে নারায়ণগঞ্জে র‌্যাব ও পুলিশ অভিযান শুরু করেছে। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয়-চতুর্থ ধাপসহ আসন্ন সকল নির্বাচনগুলো সুষ্ঠ এবং নির্বিঘ্ন করতেই এই অভিযান শুরু হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এদিকে জেলায় আগামী ২১ তারিখ থেকে টানা ৫ দিন অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের বিশেষ অভিযান পরিচালনা হবে। এতে ইউপি নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ শহরের এনায়েতনগরসহ বিভিন্ন নির্বাচনী এলাকায় যেসব দেশীয় অস্ত্রের ঝনঝনানি দেখা গেছে, তা উদ্ধার হবে বলেও ধারনা করা হচ্ছে।

 

সম্প্রতি পুলিশের আইজিপি ড. বেনীজির আহমেদ পুলিশের সকল ইউনিটের প্রধানকে দেশের ৬৪ জেলায় অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের জন্য নির্দেশ প্রদান করেন। তাই এর ধারাবাহিকতায় নারায়ণগঞ্জেও প্রশাসন অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে মাঠে নামবে।  
এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক-সার্কেল) নাজমুল ইসলাম জানান, আইজিপি স্যারের নির্দেশে, আমাদের নারায়ণগঞ্জে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের অভিযান চালু আছে। এছাড়া আগামী ২১ তারিখ থেকে টানা ৫দিন অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করবো আমরা। নারায়ণগঞ্জে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে যারা যারা অস্ত্র প্রদর্শন করেছে তাদেরও আইনের আওতায় আনার একটি প্রকৃয়া চলামান আছে। এতে তাদের অবৈধ সেই অস্ত্রগুলোও উদ্ধার করা হবে।


র‌্যাব ১১’র সিও তানভীর মোহাম্মদ পাশা বলেন, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের জন্য জন্য এমনিতেই আমাদের অভিযান সব সময় চলমান। আর নারায়ণগঞ্জে ইউপি নির্বাচনগুলো যাতে ভালো ভাবে হয়, সে বিষয়েও আমরা নজর রাখছি। এছাড়ও আমরা কিছুদিন আগে নরসংদিসহ কিছু জায়গায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করেছি অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের জন্য।  


প্রসঙ্গত, গত ১১ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জের (সদর, বন্দর, রূপগঞ্জে) ১৬ টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই নির্বাচনকে ঘিরে অনেক আগে থেকেই অনাকাঙ্খিত নানা ঘটনার অশঙ্কা করা হচ্ছিল। তাই ইউপি নির্বাচনের আগে, ভোটের দিন এবং নির্বাচনোত্তর কিছু সহিংসতায় এর প্রমানও মিলেছে। সূত্র বলছে, দেশের বিভিন্ন জেলার ইউপি নির্বাচনে প্রচুর প্রাণহানী ও সংঘর্ষ হয়েছে। তবে নারায়ণগঞ্জে সেটা তুলনা-মূলক কম হলেও কিছু কিছু স্থানে অস্ত্রের ঝনঝনানি দেখে অনেকেরই চোখ কপালে উঠেছে। যেমন, গত ১১ নভেম্বর সদর উপজেলার এনায়েত নগরের একটি ভোটকেন্দ্রের সামনে হাতে হাতে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি করেছিলো কিছু সন্ত্রাসী। কিন্তু সেদিন সন্ত্রাসীদের কাছে থাকা অস্ত্রগুলো এতোটাই প্রকাশ্যে চলে এসেছিলো যে, পরবর্তীতে এটি নিয়ে প্রশাসনও নড়েচড়ে বসেছে। 

 

এদিকে, রূপগঞ্জের কায়েতপাড়ায় নির্বাচনোত্তর সহিংসতায় একজন গুলিবিদ্ধ হওয়া ও বন্দরের কলাগাছিয়ায় পুলিশের সাথে  ভোটকেন্দ্র দখলকারীদের গুলোগুলী নিয়েও ব্যাপক আলোচনা এবং সমালোচনা হয়েছিলো।

এই বিভাগের আরো খবর