সোমবার   ১৪ জুন ২০২১   জ্যৈষ্ঠ ৩১ ১৪২৮

আইভীর এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন, ডুবছে শামীমের এলাকা

যুগের চিন্তা অনলাইন

প্রকাশিত: ৬ জুন ২০২১  

ডাক্তার সেলিনা হায়াৎ আইভী নারায়নগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র আর একেএম শামীম ওসমান হলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য। দুই জনেই জনপ্রতিনিধি। কিন্তু তাদের কাজের মাঝে বিরাট পার্থক্য লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সিটি করপোরেশনের মেয়র আইভী ব্যাস্ত রয়েছেন কেবল উন্নয়ন নিয়ে। তিনি তার সিটি করপোরেশন এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করে চলেছেন। বিপরীতে শামীম ওসমান তার ফতুল্লা থানা এলাকায় তেমন কোনো উন্নয়ন করছেন না। উন্নয়নের নামে তিনি যা করছেন তা মোটেও পরিকল্পিত নয়।

 

যার ফলে আইভীর এলাকায় কোথাও কোনো স্থায়ী জলাবদ্ধতা হচ্ছে না। কিন্তু বিপরিতে শামীম ওসমানের এলাকা বর্ষা শুরু না হতেই ডুবে গেছে। দুই নেতার এলাকার উন্নয়নেও বিরাট পার্থক্য লক্ষ্য করা যাচ্ছে। মেয়র আইভী তার এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করছেন পরিকল্পিত ভাবে। তিনি রাস্তাঘাটের উন্নয়নের পাশাপাশি এরই মাঝে অন্তত দশটি মেঘা প্রকল্পের কাজ করেছেন। কিন্তু শামীম ওসমান কোনো মেঘা প্রকল্পের কাজ করাতো দূরের কথা তিনি তার এলাকার পানি নিষ্কাশনের কোনো ব্যবস্থাই করতে পারেননি।

 

ফলে শামীম ওসমানের এলাকা ফতুল্লায় এখন স্থায়ী জলাবদ্ধতা হচ্ছে। সাধারণ মানুষ চরম দুর্ভোগের মাঝে বসবাস করছেন। বিপরীতে আইভীর এলাকায় কোথাও কোনো স্থায়ী জলাবদ্ধতা হচ্ছে না। তার এলাকায় প্রবল বৃষ্টিপাতের পর পানি কিছুটা জমলেও আবার দ্রæত নেমে যাচ্ছে। সিটি করপোরেশনের কোনো এলাকায় জলাবদ্ধতা ২/১ ঘন্টার বেশি স্থায়ী হয় না। কিন্তু শামীম ওসমানের অনেক এলাকা পুরো বর্ষাকালই ডুবে থাকে। এছাড়া লালপুর, ইসদাইর এলাকা সহ আরো অনেক এলাকা বারো মাসই পয়:নিস্কাশনের পানিতে ডুবে থাকে।

 

 প্রতি বছরই কোরবানীর ঈদে ওইসব এলাকার মানুষকে গরু ছাদে তুলে কুরবানী দিতে হয়। এক কথায় মেয়র আইভীর এলাকার মানুষ বেশ স্বাচ্ছন্দে জীবনযাপন করছে কিন্তু বিপরিতে শামীম ওসমানের এলাকার মানুষের দুঃখের কোনে সীমা পরিসীমা নেই। যার ফলে উন্নয়নে একেবারেই পিছিয়ে পরেছেন শামীম ওসমান। এই মুহুর্তে তিনি সোস্যাল মিডিয়ায় তীব্রভাবে সমালোচিত হচ্ছেন। বিপরিতে আইভী ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হচ্ছেন।

 


অপরদিকে মেয়র আইভী তার সিটি করপোরেশন এলাকায় অন্তত দশটি মেঘা প্রকল্প গড়ে তুলেছেন যার সুফল সিটি করপোরেশন এলাকার মানুষ যুগ যুগ ধরে ভোগ করবেন। বিপরিতে গোটা ফতুল্লা অঞ্চলে শামীম ওসমান কোনো মেঘা প্রকল্পই গড়ে তুলেননি। আইভীর এলাকায় আইভী নির্মান করেছেন শেখ রাসেল পার্ক, বাইবুরাইল খালের উন্নয়ন, জল্লারপাড়া লেকের উন্নয়ন, সিদ্ধিরগঞ্জ খালকে বিনোদন কেন্দ্রে রুপান্তর, আলী আহম্মদ চুনকা পাঠাগার নির্মান, জালকুড়িতে সারে তিনশ কোটি টাকা ব্যয়ে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা প্রকল্প নির্মাণসহ আরো মেঘা প্রকল্পের কাজ করছেন আইভী। কিন্তু শামীম ওসমান ফতুল্লায় এমন একটি প্রকল্পও দেখাতে পারবেন না। শামীম ওসমান ফতুল্লায় রাস্তাঘাটের উন্নয়নও করছেন অপরিকল্পিতভাবে। কোথাও উঁচু কোথাও নিচু এমন ভাবে রাস্তা বানাচ্ছেন তিনি।

 

এছাড়া ফতুল্লার অলিতেগলিতে বহু রাস্তা মানুষের চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পরে আছে। কিন্তু নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন এলাকায় এমন কিছু দেখা যাচ্ছে না। সিটি করপোরেশনের সব এলাকায় সুসম উন্নয়ন হচ্ছে। তাই ফতুল্লার সাধারণ মানুষ এখন শামীম ওসমানকে একজন ব্যর্থ এমপি হিসাবে আখ্যায়িত করছেন। ফতুল্লাবাসীর মতে এমপি নিজে কখনোই কোন এলাকায় কি সমস্যা রয়েছে নিজের চোখে দেখতে যান না। এই ক্ষেত্রে তিনি চরম অহংকরী। বিপরিতে আইভী নিজে গিয়ে প্রকল্প পরিদর্শন করেন এবং কাজ চলাকালে উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করেন। ফলে সব কিছু মিলিয়ে আইভীর সিটি করপোরেশন এলাকা একটি উন্নত নগরীতে পরিণত হয়েছে। বিপরিতে শামীম ওসমানের ফতুল্লার রাস্তাঘাটও এখন ডোবা নালায় পরিণত হয়েছে।
 

এই বিভাগের আরো খবর