শনিবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১   আশ্বিন ২ ১৪২৮

আগের মতো মাছ নেই শীতলক্ষ্যায়

যুগের চিন্তা অনলাইন

প্রকাশিত: ১২ আগস্ট ২০২১  

শীতলক্ষ্যা নদী। এটি ব্রহ্মপুত্র নদের একটি উপনদী। যা দেশের উত্তর-কেন্দ্রীয় অঞ্চলের নরসিংদী গাজীপুর, ঢাকা এবং নারায়ণগঞ্জ জেলার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। একসময় এই নদীতে জেলের জালে পড়ত পুঁটি, টেংরা, বোয়াল, রুই, কৈ, শিং, মাগুর, পাঙ্গাশ, তেলাপিয়া, শোল, আইড়, চেই, ডংকু বাইলা, টাকীসহ নানান জাতের দেশীয় মাছ। আর এসকল মাছ শিকার করে জীবিকা নির্বাহ করত জেলেরা।  

 

তবে শীতলক্ষ্যায় আগের মতন নানান জাতের দেশীয় মাছের দেখা নেই বহুদিন ধরে। এখন আর আগের মতন নদীতে জাল ফেলতে দেখা যায় না জেলেদের। নদীতে জাল ফেললেও মাছের দেখা নেই। বর্ষায় নদীতে পানি বেশি থাকায় কয়েকজন জেলেকে মাছ শিকারে দেখা গেলেও শীতকালে তাদের দেখা মিলে না। কারণ শীতকালে নদীর পানি কমে যায় আর দূষণের মাত্রা বেশি থাকে যার কারণে পানি নষ্ট হয়ে যায়। প্রায় ৪০ বছর ধরে শীতলক্ষ্যায় মাছ শিকার করে সংসার চালান জেলে মোঃ কামাল মিয়া (৫৭)।

 

একান্ত আলাপকালে তিনি বলেন, আমি ছোটবেলা থেকেই আমার বাবার সাথে নদীতে মাছ ধরি। শীতলক্ষ্যায় এখন আর আগের মতন মাছ নেই। জালে মাছ উঠছে না। এতে আমরা জেলেরা নিরুপায় হয়ে যাচ্ছি। মাছ ধরে সংসার ঠিক মতো চালাতে পারছি না। তাই বাধ্য হয়েই অনেকে পৈতৃক পেশা ছেড়ে দিয়ে অন্য পেশায় যোগদান করে আয় করছেন। অনেকেই প্রস্তুতি নিয়েছেন পৈতৃক পেশা ছেড়ে দেবেন। নদীতে কমে এসেছে জেলের সংখ্যা। শীতলক্ষ্যায় মাছ ধরে সারাবছর সংসার চালানো এই জেলে আরও বলেন, একসময় দৈনিক যা মাছ ধরতাম তা বিক্রি করে সংসার তো চালাইতামই পাশাপাশি ভালোভাবে জীবনের চাওয়া-পাওয়া পূরণ করতাম। আর এখন যা মাছ পাই তা দিয়া সংসার চালানোই কষ্টকর, বাড়তি চাহিদার কথা নাই বা বললাম। তাই অনেক কষ্টে আমাদের দিন চলছে।

 

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ মোস্তফা মিয়া জানান, বিভিন্ন কল-কারখানার রাসায়নিক বর্জ্য নদীর পানিতে মিশে পানি দূষিত হচ্ছে। এই বিষাক্ত কেমিক্যাল পানির সাথে মিশে পানি দূষিত হওয়ার কারণে নদীর মাছ মরে যাচ্ছে। যার ফলে আগের তুলনায় বর্তমানে জেলেরা মাছ পাচ্ছে না। নদীতে দেশীয় মাছ কম থাকায় আমাদের পক্ষ থেকে প্রতি বছর বিভিন্ন জলাশয়ে মাছ অবমুক্ত করা হয়। সেই মাছ বড় হয়ে বর্ষাকালে নদীতে যায়। বর্তমানে সেগুলোই জেলেরা ধরেছে। এদিকে দিন দিন পেশাদার জেলের সংখ্যা কমে আসছে। জেলেরা কারেন্ট জাল দিয়ে মাছের পোনা শিকার করার কারণে নদ-নদীতে মাছের বৃদ্ধি হয় না। তাদেরকে সচেতন করা হচ্ছে বলেও জানান এই সরকারি কর্মকর্তা।

এই বিভাগের আরো খবর