মঙ্গলবার   ২৩ এপ্রিল ২০২৪   বৈশাখ ১০ ১৪৩১

আজাদ-সুমনের হয়ে শহর রণক্ষেত্র করলেন রাজীব-রনি

যুগের চিন্তা রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২৪ মে ২০২৩  


# ৩ দফা সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছেন রাজীব-রনি গ্রুপ


আড়াইহাজার বিএনপির দুই নেতার আন্তঃকোন্দলের প্রভাব নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির পদযাত্রায় বিস্তার করতে গিয়ে দফায় দফায় সংঘর্ষ হট্টগোল রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। মূলত নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির পদযাত্রার প্রধান অতিথি বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী পদযাত্রা অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার সাথে সাথেই প্রধান অতিথির সাথে ব্যানারের সামনে দাড়ানোকে কেন্দ্রে করে বিএনপির সহ-আন্তজান্তিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ এবং আড়াইহাজরের বিএনপি নেতা মাহমুদুর রহমান সুমনের কর্মী সমর্থকদের তর্ক বিতর্কের সৃষ্ট হয়।

 

 

ঘটনাস্থল সূত্রে জানা যায়, বিএনপির সহ-আন্তজান্তিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ পদযাত্রায় প্রধান অতিথির উপস্থিত হওয়ার পূর্বেই পদযাত্রা কর্মসূচির ব্যানারে সামনের অংশে অবস্থান নেন। তবে প্রধান অতিথির সাথেই মাহবুবুর রহমান সুমন পদযাত্রায় উপস্থিত হয়ে ব্যানারে দাড়াতে গেলেই ঘটে বিপপ্তি।

 

 

আজাদ অনুগামী নেতাদের বাঁধার সম্মুখীন হন সুমন, এক দিক দিয়ে আজাদ অনুগামী নেতা মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেন আনু সুমনের সাথে দস্তাদস্তি ও উচ্চস্বরে লিপ্ত হন। এক পর্যায়ে সুমনের অনুগামী নেতা হিসেবে পরিচিত জেলা যুবদলের সদস্য সচিব মশিউর রহমান রনি আজাদ অনুগামী নেতা নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রফিকের সাথে বাকবিতন্ডাতা থেকে যুগ্ম মহাসচিবের সামনেই সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন।

 

 

পরবর্তীতে পদযাত্রায় শেষে মশিউর রহমান রনি শহরের মিশনপাড়া এলাকায় তার অনুগামীদের নিয়ে আজাদ অনুগামী নেতা রফিকুল ইসলাম রফিককে লাঠিসোটা দিয়ে আঘাত করে জখম করেন। পরবর্তীতে শহরে আজাদ অনুগামীদের লিডার হিসেবে বিভেচিত নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মাশুকুল ইসলাম রাজীব ক্ষিপ্ত হয়ে তার অনুশারীদের নিয়ে মশিউর রহমান রনিকে দাওয়া দিলে রনি দৌড়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

 

 

তবে রনি ঘটনাস্থল ত্যাগ করলেও রনি গ্রুপের একজন নেতা রাজীব গ্রুপের আঁঘাতে গুরুতর আহত হন। এছাড়া রাজীব গ্রুপেরও মাসুদ নামে আরেকজন বিএনপি কর্মী গুরুতর আহত হন। পরবর্তীতে গুরুতর আহত অবস্থায় রফিকুল ইসলাম রফিক ও মাসুদকে খানপুর ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে পাঠানো হয়।

 

 

চিকিৎসা কার্যক্রম চলাকালীন সময়েই রফিককে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া রনি গ্রুপের জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি আতাই রাব্বির উপর ক্ষিপ্ত হয়ে ফের রাজীব অনুসারীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে মাশুকুল ইসলাম রাজীবই আতাই রাব্বিকে উদ্ধার করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করান। তবে  রাজীব-রনি গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনাকে কেন্দ্র করে দীর্ঘক্ষণ শহর জুড়ে চরম উত্তেজনা বিরাজমান ছিল।  এন. হুসেইন রনী  /জেসি

এই বিভাগের আরো খবর