সোমবার   ২৪ জুন ২০২৪   আষাঢ় ১০ ১৪৩১

আতশবাজি ও ডিজে পার্টির কারণে বহু প্রাণী হার্ট এট্যাকে মারা যায়

যুগের চিন্তা রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২২ জানুয়ারি ২০২৩  



নারায়ণগঞ্জের পশু ও পাখি প্রেমিকদের অভিজ্ঞতা বিনিময়’ সভায় বক্তারা বলেছেন, গত থার্টি ফার্ষ্ট নাইটে ও ১৪ জানুয়ারী সাকরাইন উপলক্ষে ভয়াবহ আতশবাজি পোড়ানো ও উচ্চ শব্দের ডিজে পার্টির কারণে বহু পাখি ও কুকুর-বেড়াল মারা গেছে।

 

 

প্রচন্ড আতশবাজির শব্দ ও আতশবাজির আগুনের ফুলকির কারণে হার্ট এ্যাটাক হয়ে বা আগুনে পুড়ে পশু পাখি মারা গেছে। আতশবাজি থেকে বাঁচতে পাখিরা নিজ আশ্রয় ছেড়ে দূরে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেও পারেনি কারণ তাদের শুধু ঢাকায়ই নয় প্রায় প্রতিটা নগরে এ আতশবাজির ঘটনা ঘটেছে।

 

 

হাজার হাজার মাইল দূর থেকে আসা অতিথি পাখিরা মানুষের নির্মমতার শিকার হয়ে মৃত্যুবরন করেছে। পশু-পাখির সাথে মানুষের এ নির্মম আচরন বন্ধে আইনের কঠোর প্রয়োগ প্রয়োজন।  মুক্তিযোদ্ধা নাসির উদ্দিন-শাহ্ শরীফুন নেছা সমাজ কল্যান সংস্থা ও নারায়ণগঞ্জ টিভি যৌথভাবে এ অভিজ্ঞতা বিনিময় সভা আয়োজন করে।

 

 

শনিবার সকাল এগারোটায় নগরীর চাষাঢ়া বালুর মাঠ এলাকায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাব ভবনে অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ টিভি কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 

 

মুক্তিযোদ্ধা নাসির উদ্দিন-শাহ্ শরীফুন নেছা সমাজ কল্যান সংস্থার কার্যকরী সদস্য নীলা আহমেদ নিশির সভাপতিত্বে অভিজ্ঞতা বিনিময়ে অংশ নেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ, মুক্তিযোদ্ধা নাসির উদ্দিন-শাহ্ শরীফুন নেছা সমাজ কল্যাণ সংস্থার সভাপতি শরীফ উদ্দিন সবুজ, প্রাণী-পাখি নিয়ে ফেসবুক গ্রুপ ‘প্রাণবিক বন্ধু’ এর এডমিন ফাহিমুল ইসলাম। 

 

 

কুকুর প্রেমিক ফয়সাল সিনহা, কুকুর প্রশিক্ষক সেলিম ইমরান, কুকুর প্রেমিক ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র আহমেদ নেহাল শাহ্, ঢাকার রায়ের বাজার থেকে আসা ঘোড়া নিয়ে কাজ করা নাহার চাকলাদার, ধানমন্ডি থেকে আসা হাবিব আহমেদ, মাছ নিয়ে কাজ করা তৌহিদ পারভেজ সাগর। 

 

 

নারায়ণগঞ্জ ভেটেনারি ক্লিনিক পেট হসপিটালের মালিক  মোহাম্মদ সালেহীন খন্দকার বেবীন, পাখি প্রেমিক রাজু আহমেদ, নারায়ণগঞ্জ টিভির রিপোর্টার তানভীর আহমেদ, আজহারুল ইসলাম প্রমুখ।

 

 

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ অভিজ্ঞতা বিনিময় করে বলেন, আগের চাইতে মানুষের মধ্যে পশু পাখির প্রতি ভালো ব্যবহারের পরিমাণ বেড়েছে। নারায়ণগঞ্জ শহরে এমনও পাখি প্রেমিক আছেন যার সংগ্রহে কয়েক কোটি টাকার পাখি রয়েছে।

 

 

আবার অনেকে খাঁচায় না রেখে প্রতিদিন বাড়ান্দায়, রাস্তায়, ছাঁদে পাখিকে খাবার দিচ্ছেন। তিনি বলেন, থার্টি ফাষ্ট নাইটে ও ১৪ জানুয়ারী সাকরাইন উপলক্ষে ভয়াবহ আতশবাজির মতো ঘটনা বন্ধে আইনের কঠোর প্রয়োগ প্রয়োজন।

 

 

অভিজ্ঞতা বর্ননা করে পেশায় শেফ পাখি প্রেমিক রাজু আহমেদ জানান, ছোটবেলায় একজন আমাকে মেরেছিলো। আমি কেঁদে আমার মাকে ছেলেটির নাম বলেছিলাম। কিছুক্ষন পর আমার বাসার কুকুর সে ছেলেটিকে কামড়ে চলে এসেছিলো। কুকুর বেড়াল মানুষকে ভালোবাসার চরম প্রতিদান দেয়।

 

 

নারায়ণগঞ্জ টিভির রিপোর্টার তানভীর আহমেদ জানান, হাইকোর্টের আদেশের কারণে কুকুর বেড়ে গেছে। এতে শুরুর দিকে মানুষ অনভ্যস্ত ছিলো। কিন্তু এখন মানুষ বুঝতে পারছে কুকুরের কারনে তাদের কত উপকার হচ্ছে। ছিঁচকে চুরি, ছিনতাই কমে গেছে।  

 

 

ধানমন্ডি থেকে আসা হাবিব আহমেদ বলেন, ইংরেজী বর্ষবরণ ও সাকরাইনে ঘুড়ি উৎসবের দিন পাখি, প্রাণীদের প্রতি নির্মম আচরণ করা হয়েছে। আমাদের উৎসবের খেসারত তাদের দিতে হয়েছে মৃত্যু দিয়ে।

 

 

আতশবাজির শব্দে হার্ট আ্যাটাক করে অনেক পাখি, পশু মারা গেছে। অনেকে আবার অন্য এলাকায় চলে গিয়ে খাবারের অভাবে মারা গেছে।

 

 

পার্সিয়ান বিড়াল পালক আজহারুল ইসলাম বলেন, আমাদের পরিচিত একজনের একবার স্যান্ডেল হারিয়ে গেলো। কিছুক্ষণ পর তার পোষা কুকুর সেউ স্যান্ডেল খুঁজে নিয়ে তার কাছে চলে এসেছে।

 

 

তিনি বলেন, পশু-পাখিকে ভালোবাসলে কোনো ক্ষতি নেই লাভ ছাড়া। আমাদের পরিবেশের ভারসাম্য টিকিয়ে রাখতে পশু-পাখির প্রতি ভালো আচরন করতে হবে। এন.এইচ/জেসি

এই বিভাগের আরো খবর