শনিবার   ২৮ মে ২০২২   জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪২৯

আ’লীগের চেয়ারম্যান সেন্টুর বিএনপি নেতাকর্মীদের নিয়ে ঈদপুনর্মিলনী

যুগের চিন্তা অনলাইন

প্রকাশিত: ৮ মে ২০২২  

ফতুল্লার কুতুবপুরে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো বিএনপি নেতাকর্মীদের ঈদ পুর্নমিলনী। আর এর আয়োজক ছিলেন নৌকা প্রতীক নিয়ে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত কুতুবপুরের চেয়ারম্যান মনিরুল আলম সেন্টু। তার এই আয়োজন নিয়ে ফতুল্লাজুড়ে চলছে আলোচনা- সমালোচনা। সেন্টু ফতুল্লা থানা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক।

 

একাধিক সূত্র জানায়, মনিরুল আলম সেন্টুর আয়োজনে গত বুধবার (৪ মে) বিএনপির পদধারী নেতৃবৃন্দসহ বিপুলসংখ্যক কর্মী নিয়ে কুতুবপুরে ঈদ পুর্নমিলনী অনুষ্ঠিত হয়। সেন্টুর পক্ষ থেকে আগত সকলের ভুঁড়িভোজেরও ব্যবস্থা ছিল সেখানে। চেয়ারম্যান সেন্টুসহ এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন ফতুল্লা থানা বিএনপির সদস্য সচিব ও জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি শহীদুল ইসলাম টিটু, কুতুবপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি লুৎফর রহমান খোকা,

 

ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি পদপ্রার্থী হাজী শহীদুল্লাহ, ৩ নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মাদবর, বিএনপি নেতা আবুল হোসেন মহসিন, ফতুল্লা থানা যুবদলের সদস্য শাকিল মৃধা, সজীব কাজীসহ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী। উপস্থিত সকলেই সেন্টুর অনুগত হিসেবে পরিচিত। সেন্টুর এমন আয়োজন নিয়ে বিস্ময় দেখা দিয়েছে স্থানীয় রাজনৈতিক মহলে।

 

নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত চেয়ারম্যান কীভাবে বিএনপি নেতাকর্মীদের নিয়ে ঈদ পুর্নমিলনী করেন, সেই প্রশ্ন এখন সর্বত্র। কুতুবপুর আওয়ামী লীগের একাধিক নেতাকর্মী জানান, রাষ্ট্রক্ষমতায় আওয়ামী লীগ, সেন্টু আমাদের দলীয় প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান হয়েছেন। অথচ আমাদের কোনো প্রকার খোঁজ তিনি নেন না, আমরা তাকে পাশে পাই না।

 

এর বড় প্রমাণ ওই আয়োজন। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের না ডেকে তিনি বিএনপির পদধারী নেতাকর্মীদের নিয়ে মিলনমেলা করে প্রমাণ করলেন যে তিনি শুধু। ক্ষমতার লোভেই নৌকা প্রতীক নিয়েছিলেন।

 

সেন্টুর পাশে থাকা শহীদুল ইসলাম টিটু, খোকা, হাজী শহীদুল্লাহ প্রতিনিয়ত বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে বক্তব্য দিচ্ছেন। তাদেরকে নিয়ে আমাদের দলীয় চেয়ারম্যান মিলনমেলা করছেন- এরচেয়ে লজ্জার আর কিছু হয় না। কুতুবপুরে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা যে কতোটা বঞ্চনা ও অবহেলার শিকার তাও আরো একবার প্রমাণিত হলো।
 

এই বিভাগের আরো খবর