সোমবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২২   অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৯

এগিয়ে বিএনপি ধারেকাছে নেই আ.লীগ

রাকিবুল ইসলাম

প্রকাশিত: ২২ নভেম্বর ২০২২  

 

# আলীরটেকে নতুন কমিটি পেয়ে উজ্জীবিত কর্মীরা
#  বিএনপির সভাপতি আ: রহমান, সা.সম্পাদক আনোয়ার

 

টানা তিন মেয়াদে ক্ষমতার বাইরে দেশের প্রধান বিরোধী দল জাতীয়তাবাদী বিএনপি। কিন্তু বিরোধী দলে থেকেও বিএনপি নেতারা মামলা হামলা খেয়ে সাংগঠনিক ভাবে ঘুরে দাড়াচ্ছেন তা রাজনৈতিক অঙ্গনে বিরল বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বোদ্ধমহল।

 

 

তবে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ দীর্ঘ দিন ক্ষমতায় থেকেও সাংগঠনিক ভাবে বিএনপির থেকে পিছিয়ে আছে বলে মনে করেন রাজনৈতিক সচেতন মহল।এবং ক্ষমতাসীন দলের পদে না থেকেও গত ১৪ বছরে নারায়ণগঞ্জের কয়েক শত নেতার ভাগ্যের পরিবর্তন ঠিকই হয়েছে। কিন্তু সেদিক দিয়ে বিএনপির নেতাদের ভাগ্যে হামলা মামলা ছাড়া তেমন কিছু জুটে নাই। তার পরেও নারায়ণগঞ্জ জেলা মহানগর বিএনপি নেতা কর্মীরা মাঠ ছেড়ে যান নাই।

 

 


এদিকে দলীয় সূত্রে জানাযায়, এই বছরের শুরু থেকে নারায়ণগঞ্জ জেলা মহানগর বিএনপি নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি, জ্বালানি তেল বিভিন্ন দাবীতে নানা ইস্যূতে রাজপথে সক্রিয় হয়ে উঠেছে। সেই সাথে নানা সময়ে শহরের সভা মিছিল করে নেতা কর্মীদের উজ্জীবিত করে তুলেছে। সাংগঠনিক ভাবেও পিছিয়ে নেই বিএনপি। ইতোমধ্যে জেলা মহানগর আহ্বায়ক কমিটি ঘোষনা হওয়ার পর কর্মীরাও উজ্জীবিত হয়ে উঠেছে। সেই সাথে কয়েকটি ইউনিয়নে নতুন কমিটি পেয়ে তৃনমূলের কর্মীরাও জেগে উঠেছে।

 

 


খোজ নিয়ে জানাযায়, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি আহ্বায়ক কমিটি হওয়ার পর থেকে একের পর এক দলীয় নেতা কর্মীদের মাঝে চমক সৃষ্টি করছেন। কমিটি পাওয়ার পরেই শহরের চাষাঢ়া শহীদ মিনারে একাধিক সমাবেশ করা হয়। সেই সাথে সাংগঠনিক ভাবেও মহানগর শক্তিশালী হচ্ছে। ইতোমধ্যে মহানগর ইউনিটের মধ্যে সদর থানাধীন বিএনপির আলীরটেক এবং গোগনগর ইউনিয়নে সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি ঘোষনা করা হয়েছে।

 

 

তার মাঝে গোগনগর ইউনিয়নের কমিটি ভোটের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল আলীরটেক ইউনিয়ন বিএনপির কমিটিতে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন আবদুর রহমান। একই সাথে আনোয়ার হোসেন সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হন। দীর্ঘ ১৮ বছর পর কমিটি পেয়ে নেতা কর্মীরাও উজ্জীবিত।

 

 


স্থানীয় নেতারা জানান, ২০০২ সনে গিয়াস উদ্দিন এমপি থাকা কালিন সময়ে আলীরটেক ইউপি বিএনপির কমিটি হয়। গতকাল সম্মেলনের মাধ্যমে এই ইউনিয়নের আংশিক কমিটি হয়।

 

 


অপর দিকে টানা তিন মেয়াদে ক্ষমতায় থেকেও নারায়ণগঞ্জে তৃনমূলে আওয়ামী লীগ শক্তিশালী হতে পারছে না। কিন্তু পদে না থেকে কয়েক শত নেতার ভাগ্যের পরিবর্তন ঠিকই হয়েছে। এমনকি জেলার সদর থানা আওয়ামী লীগের ইউনিয়ন কমিটি হবেতো দূরের কথা আওয়ামী লীগের কমিটিও হয় নাই। আর এতে করে পদপ্রত্যাশী নেতা কর্মীরা একধরনের হতাশ হয়ে আছে।

 

 

এছাড়া আলীরটেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটি নেই প্রায় আঠার বছর হয়েছে। ইতোমধ্যে ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রয়াত সভাপতি আলী আকবর সরকার এবং সাধারণ সম্পাদক নুরুজ্জামান সরকার ইন্তেকাল করেছেন। তাদের শূন্যস্থানও এখনো তেমন ভাবে পুরন হয় নাই। গোগনগর ইউনিয়নেও একই অবস্থা হয়ে আছে।

 

 

এখানে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আজিজ মাষ্টার এবং সেক্রেটারি হিসেবে আছেন আজহারুল ইসলাম। এখানে আওয়ামী লীগের কমিটি না থাকায় আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীদের ভরাডুবি হতে পারে বলে মনের রাজনৈতিক বোদ্ধমহল। তাই শীঘ্রই কমিটি দেয়ার দাবী জানান স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা। এই দিক দিয়ে সাংগঠনিক বিএনপি এখানে এগিয়ে আছে। পিছিয়ে রয়েছে ক্ষমতাসীন দল।

 

 


বিএনপি এগিয়ে যাওয়া প্রসঙ্গে মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এম এইচ মামুন বলেন, অতীতের চেয়ে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি এবারের কমিটি সবচেয়ে শক্তিশালী। মামলা হামলার পরেও নেতা কর্মীরা মাঠ ছেড়ে যান নাই। আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে নেতা কর্মীরা দলের জন্য নিবেদিত হয়ে কাজ করে যাচ্ছে।

 

 

তিনি তার ব্যক্তিগত মন্তব্য করে বলেনম ইউনিয়ন কমিটি গঠনের আগে যদি থানা কমিটি গুলো হত তাহলে দল আরও শক্তিশালী হত। সেই সাথে ইউনিয়ন পর্যায়ে মূল দলের সাথে যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, শ্রমিক দল সহ বিএনপির অঙ্গ সংগঠনের কমিটি করা হয় তাহলে দলের মাঝে সাংগঠনিক ভাবে নেতৃত্বের বিকাশ গটত।

 

 

এতে করে যে সকল নেতা কর্মী পদ প্রত্যাশী তাদের মাঝেও হতাশা থাকত না। তাই দলকে শক্তিশালী করার জন্য অন্যান্য ইউনিয়নের ক্ষেত্রে আগে যেন থানা কমিটি এবং সহযোগি সংগঠন গুলোতে কমিটির প্রাদান্য দেয়া হয়। দলীয় সভায়ও আমি এই বিষয়টি তুলে ধরার চেষ্টা করবো।

 

 


বিএনপি নেতা শাহিন সরকার বলেন, নতুন কমিটির মাধ্যমে আলীরটেক বিএনপি এখন নতুন উদ্যোমে জাগ্রত হয়েছে। আগামী নির্বাচনে দলকে ক্ষমতায় আনার জন্য এই কমিটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। দলকে এগিয়ে নেয়ার জন্য তারা কাজ করে যাবে।

 

 


মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক এড. সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, আজকে আওয়ামী লীগ দীর্ঘ দিন ক্ষমতায় থেকে জনগনের কোন উন্নয়ন ঘটাতে পারে নাই। কিন্তু অর্থ পাচারের মাধ্যমে তাদের নিজেদের উন্নয়ন ঠিকই করেছে। এছাড়া মানুষের ভোটের অধিকার না থাকায় এখন নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি নাগালের বাইরে।

 

 

তাই আগামী নির্বাচনে এই সরকারকে জনগণ লাল কার্ড দেখাবে। এছাড়া সাংগঠনিক ভাবে মহানগর অতীতের চেয়ে শক্তিশালী কমিটি পেয়েছে। ইতোমধ্যে আমরা মহানগরের আওতাধীন গোগনগর এবং আলীরটেক ইউনিয়নের কমিটি সফলতার সাথে শেষ করেছি। বাকি কমিটি গুলোও প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

 

 


নারায়ণগঞ্জ সদর থানা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রার্থী এসটি আলমগীর সরকার বলেন, আমরা দলের জন্য নিবেদিত হয়ে কাজ করে যাচ্ছি। এছাড়া বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে নেতা কর্মীদের সক্রিয় রেখেছি। কয়েকজন সিনিয়র নেতাদের ব্যর্থতার দায়ে এখনো পর্যন্ত থানা কমিটি হয় নাই। সেই জায়গায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটি কবে হবে তা স্থানীয় নেতা কর্মীরাও জানেন না।

 

 

তবে আগামী নির্বাচনের আগে কমিটি না হলে দলের জন্য অনেক ক্ষতি হতে পারে। তাই শিগ্রই কমিটি দেয়া উচিৎ। এই আলীরটেক হলো আওয়ামী লীগের ঘাটি। অথচ এখানে কমিটি না থাকায় আজকে পিছিয়ে পরে যাচ্ছে। তাই রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, সদর থানা হলো নারায়ণগঞ্জ শহরের কেন্দ্র স্থল। অথচ এখানে ক্ষমতাসীন দল সাংগঠনিক ভাবে সবচেয়ে দূর্বল। এছাড়া এই থানাধীন ইউনিয়নের কমিটি না থাকায় বিরোধী দল বিএনপির চেয়ে পিছিয়ে রয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ।


 

এই বিভাগের আরো খবর