শনিবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১   আশ্বিন ২ ১৪২৮

কর্মীসভার নামে আইভীর কুৎসা রটানোর মিশন

যুগের চিন্তা অনলাইন

প্রকাশিত: ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১  

জ্ঞানীরা বলেন, অযোগ্যরা শুধু সমালোচনাই করে। আর জ্ঞানীদের কথাই যেন ফলছে ভিপি বাদল আর খোকন সাহার কর্মকা-ে। শুষ্ক মৌসুমে মৎস শিকারের কর্মসূচির মতোই শান্ত রাজনৈতিক পরিবেশে গত সোমবার রাইফেল ক্লাবে এক সভায় ২৭টি ওয়ার্ডে কর্মীসভার ঘোষণা দেন শামীম ওসমান। তার ডাকে সারাদিয়ে ১০ সেপ্টেম্বর  সিদ্ধিরগঞ্জ, বন্দর ও শহরে তিন কর্মীসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। যাতে কর্মীর সংখ্যা হাতেগোনা কয়েকজন হলেও কর্মীসভা পরিণত হয়েছে জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর কুৎসা রটনার।

 

চলতি বছরের শুরুতেই মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে ক্ষেপিয়ে তুলতে সাম্প্রদায়িক উস্কানি দেয়ার চেষ্টা করে একটি চক্র। কিন্তু সেসব কুচক্রান্ত বিফল হলেও এখনো পুরনোপথেই হাঁটছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. আবু হাসনাত শহীদ মো. বাদল ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. খোকন সাহা। গতকাল শুক্রবার বিকেলে বন্দর থানার ১৯নং ওয়ার্ড  আয়োজিত কর্মী সভায় এড. খোকন সাহা মেয়র আইভীকে ইঙ্গত করে আরো বলেন, ‘মানুষ এখন পরিবর্তন চায়। নারায়ণগঞ্জে এখন পরিবর্তনের হাওয়া বইছে। নির্বাচনের সময় আওয়ামীলীগ করবেন। নির্বাচন চলে গেলে ভুলে যাবেন তা হয় না। আজকে দলের মধ্যে বিশৃঙ্খলাকারীদের চিহিৃত করতে হবে। নেত্রীর উন্নয়নের কথা সাধারণ জনগনের কাছে বলতে হবে। কথা বলতে হবে। উন্নয়নের ক্ষেত্রে আমিত্ব ভাব ছেড়ে দিতে হবে’।

 


খোকন সাহার মত নিজ কমিটির সিনিয়র সহসভাপতি ও নাসিক মেয়র আইভীর প্রতি ইঙ্গিত রেখে বক্তব্য রেখেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. আবু হাসনাত শহীদ মো. বাদল। একই সভায় ভিপি বাদল বলেন, ‘আওয়ামীলীগ ধর্ম নিরপেক্ষ সংগঠন।  যারা হিন্দু সম্প্রদায়ের সম্পদ লুঠ করে তাদেরকে ত্যাগ করতে হবে। লক্ষিনারায়নে একটি মিটিং করেছিলাম। আপনারা অনেকে তা জানেন। নারায়ণগঞ্জে ৯৯ ভাগ মুসলমান বসবাস করে। এ জন্য কি হিন্দুদেরকে বিতাড়িত করা যাবে। আজকের এই কর্মী সভা জনসভায় রূপ ধারণ করেছে। মানুষ এখন পরিবর্তন চায়। যাকে আপনাদের আপদে বিপদে সব সময় পাশে পাবেন আপনারা ওই ধরনের নেতাকর্মী তৈরি করবেন। ১৯ থেকে ২৭ নং ওয়ার্ড পর্যন্ত নেতাকর্মীরা সংগঠন চায়।  খুনি মোস্তাক তিনিও আওয়ামীলীগে থেকে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে।’

 


এছাড়া শুক্রবার বিকালে নারায়ণগঞ্জ সিদ্ধিরগঞ্জে ২নং ওয়ার্ডের মিজমিজি মাদ্রাসা রোড এলাকাস্থ বুকস গার্ডেনে ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ কর্তৃক আয়োজিত কর্মী সমাবেশেও মেয়র আইভীকে ইঙ্গিত করে কুৎসা রটনা করেন এড. খোকন সাহা। তিনি কর্মীসভায় বলেন,   দল তো অনেকেই করে, কেউ কেউ নির্বাচন আসলে রাজনীতির কথা বলে। আমরা হলাম দলের কর্মী, জমি নিরাই আমরা, ধান বুনি আমরা, খেতে কামলা খাটি আমরা আর ঘু ঘু আইসা ধান খাইয়া যায়। বার বার ঘু ঘু তুমি খেয়ে যাবে ধান, একবার পেলে তোমার থলিব প্রাণ।

 

খোকন সাহা বলেন, অনেকেই উন্নয়নের কথা বলেন, আমিত্ব ভাব আনেন, আমি করেছি, আমি করেছি, এটা করেছি, সেটা করেছি, মনে হয় ওনার বাবার টাকায় করেছেন। বলতে হবে সরকারের টাকায়। শামীম ওসমানতো উন্নয়ন করে। ১৩’শ কোটি টাকা এনে দিয়েছে মজিবুর ভাই বলেছে, আরো অনেক উন্নয়ন করেছে। শামীম ওসমানতো বলে নাই, শামীম ওসমান বলেন সরকার দিয়েছে, আপা দিয়েছে। সেলিম ওসমান নিজের টাকায় উন্নয়ন করেন, সরকারী টাকা দিয়ে উন্নয়ন করেন। শামীম ওসমান ও সেলিম ওসমানের মধ্যে তো আমিত্ব ভাব নাই। জনপ্রতিনিধি যারা আছেন আমিত্ব বাদ দিয়ে আপনারা বলবেন জননেত্রী শেখ হাসিনার সাহায্য সহযোগিতায় সরকারের অর্থায়নে উন্নয়ন হয়েছে।

 


সিটি নির্বাচনের বছর ২০২১ সালের শুরু থেকেই ভিপি বাদল ও এড. খোকন সাহার বক্তব্য ছিল একই সুতায় গাঁথা। তারা দুইজনেই মেয়র আইভীকে উদ্দেশ্য করে নানা বক্তব্য রাখছেন। দল গোঁছানোর কথা বলে শুরু করা শামীম ওসমানের কর্মীসভাগুলোতে মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে কুৎসা রটানোর বিষয়টিই প্রাধান্য পাচ্ছে। সমালোচকরা বলছেন, এদিক সেদিক ঘুরেও সিটি নির্বাচনের আগে মেয়র আইভীর মতো যোগ্যতাসম্পন্ন কাউকে খুঁজে বের করতে না পেরে এখন আইভীর সমালোচনা করছেন এসব নেতারা মূলত মনের খেদ নিবারণের জন্য। মেয়র আইভীর জনপ্রিয়তা হ্রাস করতেই একটি পক্ষ এমন পথ অবলম্বন করছে।

 

তবে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, এমন উদ্দেশ্য বুমেরাং হবে তা হলফ করেই বলা যায়। কারণ এর থেকেও কয়েকগুন ঘৃণ্যভাবে আইভীর বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়েছিল একটি পক্ষ।কিন্তু মেয়র আইভী সততা, আপোষহীনতা আর উন্নয়নের বদৌলতে বারবারই পরাজিত হয়েছে ওই চক্রটি। এবারও তার ব্যতিক্রম হবেনা।
 

এই বিভাগের আরো খবর