রোববার   ২৮ নভেম্বর ২০২১   অগ্রাহায়ণ ১৪ ১৪২৮

কালের বিবর্তনে হারিয়ে যেতে বসেছে ডাকঘর

আশরাফুল আলম

প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০২১  

কালের বিবর্তনে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার দিনকে দিন বেড়ে যাওয়ায় বিশ^ায়নের এযুগে আধুনিক সভ্যতার ক্রমবিকাশে হারিয়ে যেতে বসেছে এক সময়কার বিশেষ যোগাযোগ মাধ্যম ডাক। নাই টেলিফোন নাইরে পিয়ন নাইরে টেলিগ্রাম, বন্ধুর কাছে মনের খবর কেমনে পৌছাইতাম, আধুনিক যুগে এই গান এখন মোবাইলের রিংটোন। 

 

প্রত্যন্ত অঞ্চলে যেখানে এখনো আধুনিকতার ছোয়া লাগেনি সেখানে মানুষের একমাত্র যোগাযোগের মাধ্যম ডাকঘর। বর্তমানে ইমটিএস ও পোষ্টাল ক্যাশ কার্ড নামে নতুন কিছু সেবা কার্যক্রম চালু করায় কিছু কিছু মানুষ আবার ফিরে আসছে ডাকঘরে, নিচ্ছে বিভিন্ন ধরনের সেবা। ইমটিএস এর মাধ্যমে দেশের যেকোন প্রান্তের ডাকঘর থেকে টাকা প্রদান করা যাচ্ছে এবং পোষ্টাল ক্যাশকার্ড ব্যবহার করা যাচ্ছে ব্যাংকের এটিএম কার্ডের মতো। যেটি দিয়ে দেশের যেকোন ডাকঘরে টাকা জমা এবং উত্তোলন করছে মানুষ। কিন্তু সেই সেবা থেকেও বঞ্চিত হচ্ছেন সোনারগাঁ উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার ৩ লাখ ৬৮ হাজার মানুষ। 

 

সোনারগাঁয়ে মোট ১৯টি ডাকঘর থাকলেও অনেক ডাকঘরের তেমন কোন কার্যক্রম নেই, ভাঙ্গাচুরা বেহাল অবস্থা। কোথাও আবার দিনের পর দিন খোলাও হয় না ডাকঘর। যে কারণে মানুষ কুরিয়ার সার্ভিস সহ বেসরকারি ডাকের দিকেই ঝুঁকছে। শাখা অফিসের কর্মচারীদের নামমাত্র সম্মানী ভাতা দেয়ায় অনেকেই ডাকে আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন। এক সময়ের অর্থ, চিঠি বা বার্তা আদান প্রদানের গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম আজকের এই ডাকঘর। কিন্তু আজ সময়ও কালের বিবর্তনে হারিয়ে যেতে বসেছে ডাকঘরের কার্যক্রম, কার্যালয় ও লোকবল সবই আছে কিন্তু নেই কাজ, থাকলেও চলছে সেই পুরনো নিয়মেই। বর্তমানে ডাকঘরের কার্যক্রমকে কিছুটা অত্যাধুনিক করলেও সময়ের তুলনায় তা অপ্রতুল। নতুন দিনের নতুন তথ্য প্রযুক্তি ব্যাংক ও কুরিয়ার সার্ভিসের দাপটে থমকে যাচ্ছে ডাকঘরের কার্যক্রম। 

 

আগে মানুষ ডাকঘরের মাধ্যমে টাকা বা চিঠিপত্র আদান প্রদান করত তখন তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার এত অত্যাধুনিক ছিল না। চিঠি অর্থ বা অন্যান্য সবকিছুই আনা নেওয়া করা হতো যানবাহনে, ছিলনা ইন্টারনেটের এত ব্যবহার। সময়ের পরিবর্তনে বর্তমানে দেশের বেসরকারী অনেক ব্যাংক ও কুরিয়ার সার্ভিস প্রতিষ্ঠিত হয়েছে সেগুলো ইন্টারনেট ব্যবহার করছে। বর্তমানে ইন্টারনেটের সাহায্যে অনলাইনের মাধ্যমে মুহুর্তেই দেশ তথা পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে পৌছে দিচ্ছে সব রকম তথ্য। 

 

যার ফলে সহজ ও দ্রুততম হয়ে উঠেছে মানুষের দৈনন্দিন কার্যক্রম ও অর্থ লেনদেন। কিন্তু ডাকঘরে দক্ষকর্মী ও নতুন তথ্য প্রযুক্তির কার্যকারিতা তুলনামূলক কম থাকায় মানুষ এখন ডাকঘর বিমুখ। মোবাইল, ই-মেইল, ইন্টারনেটের এ যুগে ডাকঘর গুলোর অবস্থা দেখে মানুষ ডাকঘরে যেতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছে।

এই বিভাগের আরো খবর