সোমবার   ২৪ জুন ২০২৪   আষাঢ় ১০ ১৪৩১

না.গঞ্জে গণতন্ত্রের উপর আবার আঘাত

মোস্তফা করিম

প্রকাশিত: ৬ জুন ২০২৩  


বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪২ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে আজ ছিল নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয়তাবাদি আইনজীবী ফোরামের উদ্যোগে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল। দুপুর ১ টা থেকে শান্তিপূর্ণভাবে নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতি ভবনের নীচতলায় এই সভা শুরু হলে দুপুর ২ টায় তা শেষ পর্যায়ে উপনীত হয়।

 

 

ঠিক ওই সময় একজন প্রমীলা আইনজীবীর নেতৃত্বে নারায়ণগঞ্জ জেলা বারের একাংশ বিএনপির শান্তিপূর্ণ দোয়া মাহফিলের উপর হামলা ও শক্তি প্রয়োগ করে তা পন্ড করে দেয়। দুপুর ২ টায় এডভোকেট জাকির হোসেনের বক্তব্যের পর এডভোকেট হান্টু বক্তব্য শেষ করেন।

 

 

জাকির হোসেন তার বক্তব্যে জোড়ালোভাবে ২০১৪/২০১৮ সনের একতরফা নির্বাচনের সমালোচনা করেন এবং অবিলম্বে সরকারের পদত্যাগের মাধ্যমে নিরপেক্ষ তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি জানান। তিনি বলেন শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ছিলেন এই দেশে বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা। এই সময় পরবর্তী বক্তার নাম মাইকে ঘোষণা করতে গেলে সঞ্চালক লক্ষ্য করেন কে বা কারা মাইকের সুইচ বন্ধ করে রেখেছেন। 

 

 

ফোরাম নেতারা দৌড়ে মাইকের এমপ্লিফায়ারের সামনে গেলে সেখানে বাকবিতণ্ডা ও হট্টগোলের সৃষ্টি হয়। দেখা গেলো এক আওয়ামী ঘরানার প্রমীলা আইনজীবী মাইকের সুইচ বন্ধ করে উচ্চ স্বরে চিৎকার করে বিএনপি নেতৃবৃন্দকে শাসাচ্ছেন বিনা অনুমতিতে বার ভবনে জিয়াউর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী পালন করার জন্যে। এ যেন একাই একশো।

 

 

প্রায় ৭০/৮০ জন বিএনপি সমর্থক আইনজীবী উক্ত প্রমীলা আইনজীবীর কাছে যেনো একেবারেই ম্রিয়মান। কোন প্রকারেই তার সাথে পেরে উঠতে পারছেন না। আস্তে আস্তে লক্ষ্য করা গেলো আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন আইনজীবী সমিতির একাংশ প্রমীলা আইনজীবীর সাথে যোগ দিচ্ছেন।

 

 

তারা যেনো কোনভাবেই বিএনপিকে তাদের কর্মসূচি পালন করতে দেবে না। তাদের একশনে বুঝা গেলো তারা যেনো জেলার দলীয় হাইকমান্ডের নির্দেশ পালন করছেন। হাইকমান্ডের সন্তুষ্টি লাভ করার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতি মরিয়া হয়ে অবশেষে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভা ভন্ডুল করে দিতে সক্ষম হলো। 

 

 

গত ১৫ বছর যাবত নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতিতে শক্তি প্রয়োগের মাধ্যমে যে একতরফা নির্বাচনী সংস্কৃতির উন্নয়ন ঘটেছে তা থেকে যেন কোনভাবেই বেরিয়ে আসতে পারছে না জেলা আইনজীবী সমিতি।

 

 

তাই তারা সম্পুর্ন নগ্নভাবে বিনা উস্কানিতে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভায় বে আইনি হামলা করে সভা ভন্ডুল করে আবারও প্রমান করলেন তারা গনতন্ত্রের পক্ষে নাই, সুষ্ঠু নিরপেক্ষ অবাধ নির্বাচনের পক্ষে নাই। তারা আছেন গণতন্ত্রহীনতার পক্ষে।  এন. হুসেইন রনী  /জেসি

এই বিভাগের আরো খবর