মঙ্গলবার   ২৮ মে ২০২৪   জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪৩১

নেতার ভিসা জটিলতায় কর্মী সমর্থকদের নানা মত

যুগের চিন্তা রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২৬ মে ২০২৩  

 
# তাকে ভিসা না দেয়ার মধ্যে কোন যুক্তি নেই : মীর সোহেল

# ভুল বুঝাবুঝি হয়ে থাকলে; তা অচিরেই ঠিক হয়ে যাবে : জুয়েল

# পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে কোন ব্রিফিং দেয় নাই : রিয়াদ
 

নিঃসন্দেহে নারায়ণগঞ্জ তো বটেই আওয়ামীলীগের অন্যতম প্রভাবশালী নেতা হিসেবে নিজেকে তৈরি করেছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমান। তার ক্রিয়াকর্ম নানা সময়েই মিডিয়াতে আলোচনায় থাকে। এমনকি তার ‘খেলা হবে’ ডায়লগটি নিয়েও গণমাধ্যমে কম তোলপাড় হয়নি। জাতীয় রাজনীতিতে স্যাংশন শব্দটি এখন বহুল আলোচিত।

 

 

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ঘুরতে পছন্দ করেন আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী সাংসদ শামীম ওসমান। সম্প্রতি আমেরিকার ভিসা স্যাংশনের বিষয়টিতে তিনিও পড়ায় এটি নারায়ণগঞ্জে ব্যাপক চর্চিত বিষয়। সময় টেলিভিশনের এক টকশোতে আমাদের নতুন সময়ের এমিরেটাস সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খান শামীম ওসমানের আমেরিকার ভিসা আটকে যাওয়ার প্রসঙ্গটি তুলে ধরে স্যাংশনের লঘু দণ্ড হিসেবে। আর এরপরই বিষয়টি নারায়ণগঞ্জ ব্যাপক আলোচনার যোগান দিয়েছে।

 

 

যদিও সাংসদ শামীম ওসমানকে এর আগেও আমেরিকা ভিসা দিতে গড়িমসি করেছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমেরিকার ভিসা পান শামীম ওসমান। সেখানে বেশ কয়েকদিন ঘুরেও আসেন পরিবারসহ। ক্রুজশিপে তিনি স্ট্যাচু অব লিবার্টিও দেখতে যান। সেখান থেকে ফেরার পর আমেরিকার ভিসার মেয়াদ শেষ হয়েছে কিছুদিন আগে। আবার ভিসার আবেদন করলে তাকে ভিসা দিচ্ছেনা আমেরিকা। তবে শামীম ওসমানের কর্মী সমর্থকরা বিষয়টি নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন।

 

 

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, আগামী নির্বাচনে কী হতে যাচ্ছে তা এখনো বুঝতে না পারায় তা নিয়ে নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিবিদদের মাঝে গুমোট ভাব তৈরী হয়ে আছে। তারা নিরব ভুমিকায় রয়েছে। কেননা গত নির্বাচন গুলোতে আগে থেকে বুঝতে পারলেও আগামীতে কি হতে যাচ্ছে তা বুঝতে না পারায় সবাই অনেকটা আতঙ্কে রয়েছেন।

 

 

তার মাঝে আবার আমেরিকার স্যাংশন নিয়ে সারা দেশে আলোচনা হচ্ছে। সেই আলোচনার মাঝে আওয়ামী লীগের নারায়ণগঞ্জের প্রভাবশালী সাংসদ শামীম ওসমানের আমেরিকার ভিসা না পাওয়া নিয়ে আলোচনা এখন তুঙ্গে। বক্তাবলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শওকত আলী বলেন, “এটা সঠিক নয়। কিন্তু দিচ্ছে না; তা আমাদের জানা নেই। জেনে বলতে পারবো।” তবে ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম সাইফুল্লাহ বাদলের সাথে যোগাযোগ করা হলে তার নাম্বার বন্ধ পাওয়া যায়। 

 

 

জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মীর সোহেল বলেন, “আমি এই বিষয়ে কিছু জানি না। তবে তাকে ভিসা না দেয়ার মধ্যে কোন যুক্তি নেই। কয়দিন আগেও তিনি আমেরিকা থেকে ঘুরে আসছে।” 

 

 

সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ইয়াছিন মিয়া জানান, “এবিষয়ে আমার জানা নেই। কিন্তু কেন ভিসা দিচ্ছে না তা নিয়ে আমি মন্তব্য করতে পারবো না।” 

 

 

বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজিম উদ্দিন বলেন, “আমি এটা দেখি নাই। তা এবিষয়ে না জেনে কোন মন্তব্য করতে রাজি না।” 

 

 

এব্যাপারে মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনু কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। নারায়ণগঞ্জ মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি জুয়েল হোসেন বলেন, “আমি এবিষয়ে কোন মন্তব্য করতে রাজি না। কেন ভিসা দিচ্ছে না তা আমার বোধগম্য নয়; না দেয়ার কোন কারণ দেখছি না। সংদ সদস্য হিসেবে তিনি ভিসা পাওয়ার অধিকার রাখে। যদি কোন ভুলবুঝাবুঝি হয়ে থাকে তা অচিরেই ঠিক হয়ে যাবে।” 

 

 

নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদ বলেন, “এটা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন তথ্য। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবিষয়ে কোন ব্রিফিং দেয় নাই। এছাড়া যার বিষয়ে বলা হচ্ছে তিনি কিছু বলেন নাই।” 

এই বিভাগের আরো খবর