রোববার   ১১ এপ্রিল ২০২১   চৈত্র ২৭ ১৪২৭

পরিবহনে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি, কমেনি যাত্রী

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ৩ এপ্রিল ২০২১  

করোনার সংক্রমন এড়াতে গত ৩০ মার্চ দেশের গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী বহনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে। তাই এই নির্দেশনা বস্তবায়ন করতে একই দিনে, এসব পরিবহনের ভাড়া ৬০ শতাংশ বৃদ্ধির কথা জানায় সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়েদুল কাদের। পাশাপাশি শর্তসাপেক্ষে যাত্রীবাহি বাস ও মিনিবাসে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে পরিবহন পরিচালনারও নির্দেশ দেন মন্ত্রী।

 

কিন্তু ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটের কিছু পরিবহন সরকারি এই নির্দেশনা মানছে না। উল্টো এ বিষয়ে জানতে চাইলে চালক কিংবা হেলপারের কাছে হেনস্থার শিকার হতে হচ্ছে যাত্রীদের।

 

যাত্রীরা অভিযোগ করেন, এই রুটের সিটি বন্ধন, আনন্দ ও বন্ধু পরিবহনসহ বেশ কয়েকটি বাসেই ৬০ শতাংশ অতিরিক্তি ভাড়া নিয়েও, অর্ধেক আসন ফাঁকা না রেখে যাত্রী বসানো হচ্ছে। পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধিরও কোনো তোয়াক্কা করা হচ্ছে না এসব পরিবহনে।

 

বৃহস্পতিবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে নারায়ণগঞ্জের সিটি বন্ধন পরিবহনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে সেলিম হোসেন নামে এক ব্যক্তি লিখেন, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটের যাত্রীবাহি বাস সিটি বন্ধন পরিবহনে ৩৬ টাকার ভাড়া ৫৮ টাকা নিলো, তবুও কেন পাশের সিটে অরেকজন বসল?

 

জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সিটি বন্ধন পরিবহনের এক সুপারভাইজার বলেন, আমাদের বাসে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই যাত্রী নেয়া হচ্ছে। এতে কোনো রকমের সন্দেহ নেই। কিন্তু মাঝে মাঝে যাত্রীরা নিজেরাই ভুলে পরপর দুই সিটে দুইজন বসে যায়! এতে আমাদের কোনো দোষ নেই। তবে এ বিষয়ে আমরা এখন থেকে খেয়াল রাখবো।

 

অন্যদিকে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় বাস কাউন্টারে গিয়ে আব্দুন রহমান নামেন এক যাত্রীর সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমি গতকাল পোস্তখোলা যাওয়ার জন্য আনন্দ বাসে উঠেছিলাম। কাউন্টার থেকে আমার কাছ থেকে টিকেটের মূল্য ৩৬ টাকা (৬০ শতাংশ বেশি) রাখা হয়েছে। কিন্তু বাসে উঠে আমি দেখি এরা স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করে বাসের প্রতিটি আসনে যাত্রী উঠাচ্ছে। তাহলে আমার ৬০ ভাগ ভাড়া বেশি দিয়ে লাভ হলো কি? এই বিষয়ে আমি কর্তৃপক্ষের কাছে জানতে চাইলে তারা উল্টো আমার সাথে খারাপ ব্যবহার করে।
 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে কোনো বাসে যদি অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হয় তাহলে আমরা সেই বাস মালিক ও হেলপারের বিরুদ্ধে মোবাইকোর্ট পরিচালনার মাধ্যমে কঠোর ব্যবস্থা নিবো।
 

এই বিভাগের আরো খবর