রোববার   ১১ এপ্রিল ২০২১   চৈত্র ২৭ ১৪২৭

পাথর ছুড়ঁতে ছুড়ঁতে পালিয়েছিলো কার্গোটি

যুগের চিন্তা অনলাইন

প্রকাশিত: ৬ এপ্রিল ২০২১  

গত রোববার (৪ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৫ টা ৫৬ মিনিটে ‘সাবিত আল হাসান’ বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ টার্মিনাল থেকে ছেড়ে যাওয়ার মাত্র ১৫ মিনিটের মাথায় নির্মাণাধীন শীতলক্ষ্যা তৃতীয় সেতু (চায়না ব্রীজ) ৬টা ১০মিনিটে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে লঞ্চটি। সোমবার রাত অবধি ৩০ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। দুর্ঘটনার জন্য দায়ী এসকেএল-থ্রি (এম ০১২৬১৩) নামের একটি কোষ্টার জাহাজ পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে যাত্রীবাহী জাহাজটিকে ২০০ মিটার টেনে নিয়ে যায়। দুর্ঘটনা ঘটিয়ে এতো বড় দুর্ঘটনার জন্য ভ্রুক্ষেপ করেননি জাহাজটির চালকরা। বেপরোয়া গতিতে পালিয়ে যেতে থাকে কার্গোটি। এসময় নৌপুলিশের একট টহল টিম অনুসরন করে বলে জানান মুন্সিগঞ্জ নৌথানা পুলিশের একটি সূত্র।


তারা বলেন, দুর্ঘটনা ঘটিয়ে একটি কার্গো দ্রুত সটকে পরছে জানতে পেরে তারা অনুসরণ করে কার্গোটি। মুন্সিগঞ্জ নৌপুলিশের এক পরিদর্শক জানান, তারা যখন অনুসরণ করছিলেন কার্গোটিকে। তখন পাথর ছুড়ে মারা হচ্ছিল স্পিড বোডটির দিকে। কিছুদূর অনুসরণ করলেও শেষ পর্যন্ত ঘাতক কার্গোটিকে আর অনুসরণ করা সম্ভব হয়নি।  


সোমবার দুপুরে লঞ্চটি উদ্ধারের পর দুপুর দেড়টায় উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করেন বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যন কমডোর গোলাম সাদেক। তিনি বলেন, ‘দুর্ঘটনা ঘটানোর জন্য দায়ী এসকেএল-থ্রি (এম ০১২৬১৩) কোস্টার জাহাজটি আটকের জন্য খোঁজ নেয়া হচ্ছে। খুব শীঘ্রই আশা করছি জাহাজটিকে ধরতে পারবো। উদ্ধার অভিযানে ব্যস্ত থাকায় ওই জাহাজটিকে ধরা যায়নি। যাদের অসতর্কতার দরুণ এই দুর্ঘটনা ঘটেছে তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে’।
 

এই বিভাগের আরো খবর