শুক্রবার   ২১ জানুয়ারি ২০২২   মাঘ ৮ ১৪২৮

প্রচারণায় ভালবাসায় সিক্ত আইভী

যুগের চিন্তা রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১৪ জানুয়ারি ২০২২  

নাসিক নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী ডা.সেলিনা হায়াৎ আইভী গতকাল সকালে ১৬নং ওয়ার্ড দেওভোগ, বাবুরাইল, আখড়া, তাতীপাড়া এলাকায় ও বিকেলে ১৯নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন গলিতে নৌকা প্রতীকের ব্যাপক গণ সংযোগ করেন। ছবিটি তুলেছেন: মেহেদী হাসান ।

নাসিক নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী ডা.সেলিনা হায়াৎ আইভী গতকাল সকালে ১৬নং ওয়ার্ড দেওভোগ, বাবুরাইল, আখড়া, তাতীপাড়া এলাকায় ও বিকেলে ১৯নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন গলিতে নৌকা প্রতীকের ব্যাপক গণ সংযোগ করেন। ছবিটি তুলেছেন: মেহেদী হাসান ।

আর মাত্র একদিন পর অনুষ্ঠিত হবে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (নাসিক) এর নির্বাচন। আজকে নির্বাচনী প্রচারণার শেষ দিন। তাই এখন প্রার্থীরা ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন শেষ মুহূর্তের প্রচারণায়। কর্মী-সমর্থকেরা নিজ নিজ প্রার্থীর পক্ষে ভোটারদের মন জয় করতে জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে প্রচারণার ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম দেখা যাচ্ছে মেয়র পদের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াত আইভীকে। মেয়র পদে হাতি মার্কার নির্বাচনী প্রচারণা করতে গিয়ে উল্টো জনগণের ভালবাসায় সিক্ত হচ্ছেন তিনি। এত দিন যে আইভী মেয়র ছিলেন তাকে এক নজর দেখার জন্য স্থানীয়রা বিশেষ করে নারী ভোটাররা উৎসাহিত হয়ে অপেক্ষা করতে থাকেন এবং আইভী আসা মাত্র তারা আইভী ও নৌকার স্লোগানে মাতিয়ে তোলেন এলাকা। ফুলের পাপড়ি ছিটিয়ে তাকে এমনভাবে বরণ করে নেন যে, আইভীর সারাদিনের কষ্ট-গ্লানি এক নিমিষে উবে যায়। ঠোটের কোনে স্থান পায় তৃপ্তির হাসি। আর স্থানীয় ভোটাররা ভাবে এই হাসিটা যেন ম্লান না হয়, নির্বাচনের পরও যেন ঠোটের কোনে এই হাসিটা বজায় থাকে সেই দায়িত্বটা যেন তারা আপন তাগিদেই নিজেদের কাঁধে তুলে নেন। এতবছর যাবত জনগণের সকল সমস্যা সামাধানের দায়িত্ব যেভাবে আইভী তার নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন এখন তার প্রতিদান দিতে জনগণ যেভাবে তার পাশে এসে দাঁড়িয়েছে তাতে আইভীর মনে এক ধরণের বিশ্বাস ও দৃঢ়তা সৃষ্টি করে আইভীকে অনেকটাই নির্ভার করে তুলেছে।
 


গতকাল বৃহস্পতিবার বন্দরের নাসিক ১৯ নং ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াত আইভী নির্বচনী প্রচারণায় গেলে সেখানেও দেখা যায় অভিভুত দৃশ্য। বিশেষ করে স্থানীয় নারী ভোটাররা দীর্ঘ সময় অপেক্ষার পর যখন মেয়র প্রার্থী আইভী সেখানে যান, সেসময় এক অভূতপূর্ব দৃশ্য দেখা যায়। সবাই আইভীকে একটু কাছ থেকে দেখার জন্য, নিজেদের সংগ্রহ করা ফুল ছিটিয়ে বরণ করার জন্য সে-যে-কি প্রাণপণ চেষ্টা, এরমধ্য থেকে যারা তাকে কাছ থেকে দেখতে পেয়েছে, ফুল দিয়ে বরণ করে নিতে পেরেছে তাদের মধ্যে যে কী আনন্দ এবং তৃপ্তির ছাপ! তা ভাষায় প্রকাশ করার মতো না। তবে এতটুকু বুঝা যায়, এই তৃপ্তি ভালবাসার, এই তৃপ্তি খুব প্রিয় মানুষকে কাছে পাওয়ার।
 


প্রার্থীদের প্রচারণার মাইকিং, মিছিল ও স্লোগানে মুখর নাসিক এলাকা। কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে গণসংযোগে ব্যস্ত প্রার্থীরা। কেউ কুশল বিনিময় করছেন। কেউ দিচ্ছেন প্রতিশ্রুতি। স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা ও সমর্থকদের মতে, নির্বাচনের শেষ মুহুর্তে এসে ভোটাররা এখন ব্যস্ত চুলচেরা বিশ্লেষণে। তবে মেয়র আইভীকে জনগণ যেভাবে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে, উৎসাহ যুগিয়ে যাচ্ছে, তাতে করে এবারও আইভীকে ঠোকানোর মতো কেউ নাই। যদিও প্রথম থেকেই আইভীর পাল্লা ভারি, তবে তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে ধরা হয়ে থাকে স্বতন্ত্র প্রার্থী এড. তৈমুর আলম খন্দকারকে। কিন্তু নির্বাচনের শেষ পর্যায়ের এসে তৈমুরের অবস্থা তথৈবচ। যদিও নির্বাচনে প্রচার প্রচারণার সময় উভয় পক্ষ থেকেই কিছু অভিযোগ পাল্টা-অভিযোগ এসেছে, তবে রাজনৈতিক মহলের মতে এগুলো নির্বাচনের একটি অংশ।

এই বিভাগের আরো খবর