মঙ্গলবার   ২৮ মে ২০২৪   জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪৩১

প্রতিশ্রুতি পূরণে ব্যর্থ স্বপন চেয়ারম্যান

যুগের চিন্তা রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২৩ মে ২০২৩  

 

# সমস্যার কথা এমপির কাছে তুলে ধরবেন সেই সৎ সাহস তার নেই

 

 

এলাকার উন্নয়নে চরম ভাবে ব্যর্থ হচ্ছেন এই ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান স্বপন। এবার নির্বাচিত হওয়ার আগেও তিনি বেশ কয়েক বছর চেয়ারম্যান ছিলেন। তিনি চেয়ারম্যান থাকাকালে সবচেয়ে বেশি জলাবদ্ধতার শিকার হয়েছেন ফতুল্লা ইউনিয়ন এলাকার মানুষ। তাই বিগত নির্বাচনে তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে তিনি নির্বাচিত হলে তার ব্যাপক উন্নয়ন করবেন এবং এলাকাকে তিনি জলাবদ্ধতা থেকে মুক্ত করবেন। কিন্তু সেই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে চরম ভাবে ব্যর্থ হচ্ছেন তিনি।

 

ফতুল্লা ইউনিয়ন এলাকায় একদিকে যেমন কোনো উন্নয়ন হচ্ছে না অপরদিকে তেমনি জলাবদ্ধা নিরসনেও তিনি তেমন কিছু করছেন না। ফতুল্লা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার সাধারণ মানুষ জানিয়েছেন গত বছর দেশে তেমন কোনো বৃষ্টিপাত হয় নাই। ফলে এলাকায় তেমন খারাপ ধরনের কোনো জলাবদ্ধ হয় নাই। কিন্তু এর আগে টানা কয়েক বছর ফতুল্লা ইউনিয়নে ব্যাপক জলাবদ্ধতা হয়েছে। কিন্তু এবারের বর্ষায় যেকোনো সময় ভারি বৃষ্টিপাত হতে পারে। আর একবার ভারি বর্ষন হলেই ডুবে যাবে এলাকা।

 

কারন স্বপন চেয়ারম্যান এলাকায় কোনো ড্রেনেজ ব্যবস্থা গড়ে তোলেন নাই। শুধু তাই নয় এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে তার কোনো প্রচেষ্টাও নেই। এলাকায় জলাবদ্ধতা নিরসন করতে হলে যে পরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে সেটা করছেন না চেয়ারম্যান স্বপন বা এমপি শামীম ওসমান।

 

এদিকে এলাকাবাসী আরো মনে করেন এলাকাটি যেহেতু সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান এমপিরও নির্বাচনী এলাকা। তাই এখানে এমপির দায়বদ্ধতা সবচেয়ে বেশি। কিন্তু এমপিকে দিয়ে কাজ করানোর দায়িত্ব হলো স্বপন চেয়ারম্যানের। কিন্তু মুশকিল হলো স্বপন চেয়ারম্যান যে তার এলাকার সমস্যার কথা এমপির কাছে তুলে ধরবেন সেই সৎ সাহস তার নেই। তাই কেবল মাত্র জন্মনিবন্ধন আর চারিত্রিক সনদে সাইন করা ছাড়া তার আর কোনো কাজ নেই।

 

যার ফলে এমপি শামীম ওসমানের আর চেয়ারম্যান স্বপনের ব্যর্থতায় গোটা ফতুল্লা ইউনিয়ন এলাকার মানুষের মনে চরম হতাশা বিরাজ করছে। নির্বাচনের আগে স্বপন যে সকল প্রতিশ্রুতি দিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন সেগুলো তিনি মোটেও পুরণ করছেন না। তাই স্বপন চেয়ারম্যানের প্রতি এলাকাবাসীর ক্ষোভ বাড়ছে বলে জানিয়েছেন এই ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার মানুষ।

এস.এ/জেসি

এই বিভাগের আরো খবর