শুক্রবার   ২১ জানুয়ারি ২০২২   মাঘ ৮ ১৪২৮

ফেভারিট সাদরিল, আনিসের চ্যালেঞ্জ

যুগের চিন্তা রিপোর্ট

প্রকাশিত: ৫ জানুয়ারি ২০২২  

আসন্ন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে সিদ্ধিরগঞ্জের ৫নম্বর ওয়ার্ডে উৎসব মূখর পরিবেশে জমে উঠেছে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা। ওয়ার্ডের পাড়া-মহল্লার অলি-গলিতে ছেয়ে গেছে পোষ্টারে। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের প্রচারণার মাইকিংয়ে মুখরিত এলাকা। ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ছুটছেন প্রার্থীরা। নানাবিধ উন্নয়ণের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোটারদের আকৃষ্ট করতে দিনে-রাতে ঘাম ঝরাচ্ছেন তারা। কার গলায় ঝুলবে বিজয়ের মালা এ নিয়ে ওয়ার্ড জুড়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। এ ওয়ার্ডে নারায়ণগঞ্জ-৪ (সিদ্ধিরগঞ্জ-ফতুল্লা) আসনের ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানের নানা শ্বশুরের বাড়ি এবং বিএনপি দলীয় সাবেক সংসদ সদস্য গিয়াস উদ্দিনের বাড়ী হওয়ায় এ ওয়ার্ডের দিকে দৃষ্টি রয়েছে নারায়ণগঞ্জ বাসীর। আবার সেই গিয়াস উদ্দিনের ছেলে বর্তমান কাউন্সিলর ও আসন্ন নির্বাচনে কাউন্সিলর পদপ্রাথী জিএম সাদরিল এবং সাংসদ শামীম ওসমান বলয়ের কাউন্সিলর প্রাথী আনিসুর রহমান। তাই এ ওয়ার্ডের নির্বাচন নিয়ে সর্বত্রই মুখরোচক আলোচনা-সমালোচনা প্রত্যক্ষ হচ্ছে।

ভোটারদের দাবী, যাকে সবসময় বিপদে-আপদে কাছে পাওয়া যাবে এবং যাকে দিয়ে কাঙ্খিত উন্নয়ন হবে তাকেই তারা বেছে নিবে বলে জানিয়েছেন। সব মিলিয়ে এ ওয়ার্ডের নির্বাচন অত্যন্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা পূর্ণ হবে বলে জনগণ আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ২৭টি ওয়ার্ডের মধ্যে সিদ্ধিরগঞ্জের বিদ্যুৎ কেন্দ্র, সাইলো রোড, কলাবাগ, আইয়ুব নগর, ওমরপুর, সিদ্ধিরগঞ্জ বাজার, মাজার রোড, উত্তর আজিবপুর ও সর্দারপাড়াকে নিয়ে ৫নং ওয়ার্ডটি ঘটিত। এ ওয়ার্ডে নারী ও পুরুষ মিলে প্রায় ১৫ হাজার ভোটার।  নির্বাচন কমিশন থেকে প্রতীক বরাদ্ধ পেয়ে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন ব্যাডমিন্টন প্রতীকে বর্তমান কাউন্সিলর গোলাম মুহাম্মদ সাদরিল, তার নিকটতম প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বি ঠেলাগাড়ী প্রতীকে আনিসুর রহমান, ঝুড়ি প্রতীকে জাহাঙ্গীর আলম, করাত প্রতীক নিয়ে কুতুব উদ্দিন ও লাঠিম প্রতীক নিয়ে ইসমাইল।

ওয়ার্ডবাসীর মতে, এ ওয়ার্ডে মূলত শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে ব্যাডমিন্টন প্রতীকে বর্তমান কাউন্সিলর গোলাম মুহাম্মদ সাদরিল ও তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বি ঠেলাগাড়ী প্রতীকের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী আনিসুর রহমানের মধ্যে। গত নির্বাচনে এ দু’জনের মধ্যেই হাড্ডা-হাড্ডী লড়াই হয়। এবারও তাদের মধ্যেই লড়াই হবে বলে ওয়ার্ডবাসী ধারণা করছেন।

জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতৃবৃন্ধের সমর্থণ নিয়ে মাঠে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছেন শামীম ওসমান সমর্থক গোষ্ঠী, সিদ্ধিরগঞ্জ শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক ও আওয়ামীলীগ নেতা আনিসুর রহমান। ইতিমধ্যে সাংসদপুত্র একেএম অয়ন ওসমান ও সাংসদ পত্নী সালমা ওসমান লিপির নির্দেশনায় তাঁর পক্ষে মাঠে কাজ করছেন জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ। এছাড়া করোনা কালীন সময় এবং বিগত পাঁচ বছর ওয়ার্ডের সুবিধা বঞ্চিত, অসহায় ও নীরিহ মানুষের সুখে-দু:খে পাশে থেকে তাদের সেবায় জনপ্রতিনিধি না হয়েও মানব সেবায় নিয়োজিত ছিলেন। সেই দিক দিয়ে সকলের চেয়ে এগিয়ে রয়েছেন আনিসুর রহমান। এছাড়া যুবসমাজকে মাদকের ছোবল থেকে রক্ষা করতে খেলাধুলায় আকৃষ্ট করতে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন। তাঁর এসব কর্মকান্ডের কারণেই ওয়ার্ডে তাঁর ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে। পাশাপাশি মানুষের যে মৌলিক চাহিদা গুলো রয়েছে (অন্য, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা এবং চিকিৎসা) সেগুলো বাস্তবায়নে আনিসুর রহমান নির্বাচিত হলে বিশেষ নজর দিবেন বলেও আনিসুর রহমান ব্যক্ত করেছেন।
অপরদিকে, বর্তমান কাউন্সিলর গোলাম মোহাম্মদ সাদরিলের সম্পর্কে জানতে চাইলে ওয়ার্ডবাসী জানান, বাবা সাবেক এমপি গিয়াসউদ্দিন রাজনীতি ও শিক্ষা কার্যক্রম নিয়ে ব্যস্ত। তবে সাদরিলের নামে কোন বিতর্ক নেই। এলাকায় সববয়সী মানুষের কাছে সমান গ্রহণযোগ্য সাদরীল। গত ৫বছরে এলাকার সব কাচা রাস্তা পাকা হয়েছ, ড্রেনগুলোকে কার্যকর করা হয়েছে। নাগরিক সুবিধা বাড়ানোর ক্ষেত্রে কাউন্সিলর হিসেবে সাদরিল তৎপর ছিল।

ওয়ার্ডবাসীর মতে, জনগণের সাথে সাদরিলের ব্যাপক গণসংযোগ না থাকলেও পূর্বের ন্যায় পিতার কৌশলকে কাজে লাগিয়ে নির্বাচিত হওয়ার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে প্রতীক বরাদ্ধের পরও জোরে-শোরে প্রচারণায় না থাকলে গত রবিবার আওয়ামীলীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী ৫ নম্বর ওয়ার্ডে প্রচারণায় আসলে সাদরিল বিএনপির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থাকলেও ডা. আইভীর সাথে প্রচারণায় যুক্ত হয়েছিলেন। বিএনপি- কিংবা আওয়ামী লীগ সব ধরণের মানুষের কাছেই গ্রহণযোগ্য সাদরীল। এলাকাবাসীর সুস্পষ্ট ভাষ্য, স্থানীয় নির্বাচনে কে কোন দলের প্রার্থী আর কে কোন দল করেন এসব দেখা হয়না। শান্তিপ্রিয়ত সাদরীল আর আনিস যাকে যোগ্য মনে করবে এলাকাবাসী তাকেই নির্বাচিত করবে।
 

এই বিভাগের আরো খবর