শনিবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১   আশ্বিন ২ ১৪২৮

‘বন্ধুদের সাথে অনেক দিন পর দেখা হবে’

যুগের চিন্তা অনলাইন

প্রকাশিত: ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১  

ফাইল ফটো

 

করোনার কারণে গত বছর থেকে পুরো শিক্ষাপঞ্জি এলোমেলো হয়ে গেছে। করোনা পরিস্থিতিতে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি চলছে , যা আগামী রোবার সারা দেশের ন্যায় নারায়গঞ্জের শিক্ষা প্রতিষ্টান  গুলোতে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হতে যাচ্ছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত আসায় ইতিমধ্যে প্রতিষ্ঠান গুলোতে প্রস্তুতি শেষ করেছে। শিক্ষাবিদদের মতে দের বছরে অনেক শিক্ষার্থী ঝরে পরেছে। সেই সাথে অনেক শিক্ষার্থী পড়া লেখার মনোযোগ থেকে দূরে সরে গেছে। তাদের আগের রুপে ফিরিয়ে আনতে কিছুটা কষ্ট হতে পারে বলে মনে করে শিক্ষাবিদরা।

 

এদিকে মাধ্যমিক উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় গুলো খুলে দেয়ায় ছাত্র ছাত্রীদের মাঝে অনেকটা আনন্দ বিরাজ করছে। কয়েক শিক্ষার্থী জানান, দীর্ঘ দিন পরে তাদের বন্ধুদের সাথে দেখা হবে। বিদ্যালয়ের শ্রেণী কক্ষে বসে আগের মত খোস গল্প করতে পারবে। এ জন্য তাদের মাঝে এক অন্য রকম অনুভূতি কাজ করছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নারায়ণগঞ্জ শহরের বিভিন্ন স্কুল কলেজের প্রত্যেকটি কক্ষে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করা সহ জীবানুনাশক স্প্রে ছিটানো হচ্ছে। পরিচ্ছন্নতার পাশাপাশি আসবাব, বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম, মাঠের গর্তে মাটি ভরাটসহ ভাঙা দরজা-জানালা মেরামতের চিত্র দেখা গেছে বেশ কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে। সেই সাথে মাঠের ঘাঁস কেটে ছোট করা হচ্ছে। পাশা পাশি বিদ্যালয়ের আশ পাশ পরিস্কার করা হচ্ছে।

 

নারায়ণগঞ্জ হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. কামরুল ইসলাম বলেন, ‘পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা এটা আমাদের চলমান প্রক্রিয়া সবসময় হয়ে থাকে। তারপরেও যেহেতু ১২ তারিখ থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার ব্যাপারে নির্দেশনা রয়েছে। সে হিসেবে আমাদের চলমান পক্রিয়ার বাইরে গিয়ে একেবারে ভাল করে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম করছি। যাতে করে কোনো রকমের অপরিস্কার না থাকে। ডিটারজেন্ট দিয়ে পরিস্কার করার পর স্যাভলন পানি দিয়ে জীবানুমুক্ত করা হচ্ছে।’ পাশাপাশি মাঠের ঘাঁসগুলো বড় হয়েছিল সেগুলো ছোট করে দেয়া হচ্ছে। যাতে করে ছেলে মেয়েরা নির্বিঘ্নে চলাফেরা করতে পারে। সরকার যেভাবে নির্দেশনা দিবে আমরা সে নির্দেশনা অনুযায়ী কার্যক্রম পরিচালনা করবো।’

 


নারায়ণগঞ্জ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জানান, স্কুল খোলার খবরে শিশুরা খুব খুশি। তারা স্কুলে আসার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে। অনেকেই আবার দলে দলে স্কুলে এসে বিদ্যালয় খোলার খবর শুনে যাচ্ছে। সব মিলিয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে আনন্দের আমেজ ছড়িয়ে পড়েছে। এ প্রসঙ্গে কথা হয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রাফিয়াদ হোসেনর সঙ্গে। সে বলে, ‘দেড় বছর পর স্কুল যাব। বন্ধুদের সঙ্গে আবার দেখা হবে। স্কুল খুললে বন্ধুদের সঙ্গে ক্লাস করব, সবার সাথে খোস গল্প করবো। বিদ্যালয়ের মাঠে আগের মত এক সাথে সকলে লাইনে দারিয়ে পিটি করবো খুব মজা হবে!

 


জেলা শিক্ষা অফিসের সুত্রে জানা যায়, নারায়ণগঞ্জে প্রায় ৮৪৭ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলবে। জেলায় সরকারি বেসরকারি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক সহ প্রায় ৩০০ টি স্কুল কলেজ মাদরাসা রয়েছে। এছাড়াও ৫৪৭ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। প্রসঙ্গত করোনার কারনে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। যা আগামী রোববার শেষ হবে।
 

এই বিভাগের আরো খবর