মঙ্গলবার   ২৫ জুন ২০২৪   আষাঢ় ১১ ১৪৩১

‘বিদায় নেয়ার আগে পাগলামী বন্ধ করুন’

যুগের চিন্তা রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩  


# আমাদেরকে হামলা মামলার ভয় দেখিয়ে লাভ নেই, এসবতো চলছেই
বিএনপিকে ক্রমাগত হুংকার দিয়ে চলেছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি একেএম শামীম ওসমান। বিএনপির নেতাকর্মীদের নারায়ণগঞ্জ থেকে বের করে দেয়া সহ তাদের বাড়িঘওে হামলা করার হুমকিও দিয়েছেন শামীম ওসমান এমপি। এছাড়া বলেছেন সকাল বলে তিনি ঘুম থেকে উঠে একটি হাঁচি দিলেই নাকি নারায়ণগঞ্জ ছেড়ে বিএনপির সব নেতাকর্মী পালিয়ে যাবেন।

 

 

আগামী ১৬ তারিখ তিনি নারায়ণগঞ্জে একটি শোডাউন করবেন। তর জন্য নিচ্ছেন ব্যাপক প্রস্তুতি। তিনি একটি হাঁচি দিলেই নাকি এই জেলা থেকে বিএনপির সব নেতোকর্মী পালিয়ে যাবেন। তিনি বিএনপিকে নাই করে ফেলার হুমকি দিচ্ছেন। যার ফলে বিভিন্ন মিডিয়ায় তার সমালোচনাও চলছে সমান তালে।

 

 

এরই মাঝে দেশের সিনিয়র সাংবাদিক মাসুদ কামাল শামীম ওসমানের তীব্র সমালোচনা করে তার নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে বক্তব্য রেখেছেন। তিন দিন আগে শামীম ওসমানের বক্তব্যের পর মাসুদ কামাল জানতে চেয়েছেন শামীম ওসমান কি এমপি? গাডফাদার? নাকি মাস্তান? তিনি বলেছেন শামীম ওসমান যে ভাষায় কথা বলছেন এটা তামিল ছবির গডফাদারকেও হার মানায়।

 

 

একজন এমপি হয়ে শামীম ওসমান এমন কথা বলতে পারেন না বলে ওই সাংবাদিক জোরালো মতামত তুলে ধরেন। শুধু তাই নয়,  এ সময় মাসুদ কামাল বলেন শামীম ওসমান যা বলেছেন তাতে তাকে গ্রেফতার করা উচিৎ। নইলে তিনি মানুষের ঠেংঠোং ভেঙ্গে ফেলবেন। মাসুদ কামালের এই বক্তব্য এরই মাঝে সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

 


পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জের বিএনপির নেতাকর্মীরা শামীম ওসমানের বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করছেন। এ বিষয়ে মোবাইল ফোনে জেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ¦ মুহম্মদ গিয়াস উদ্দিন বলেছেন, এটাই তার রাজনীতি। তার বয়স বাড়লেও আচরনে রয়ে গেছেন শিশু সুলভ। শোনলাম তিনি এবার আমাদের দলের নেতাকর্মীদের যেভাবে  হুমকি দিচ্ছেন সেটা জাতীয় পর্যায়েও সমালোচনা হচ্ছে।

 

 

কিন্তু কি আর করা, তিনিতো রাজনীতির ভাষাই জানেন না। সন্ত্রাস করাকেই তিনি রাজনীতি মনে করেন। দেশেতো এখন আর কোনো আইনশৃংখলা বলতে কিছু নেই, তাই সরকারী দলের লোকেরা যা খুশী তাই করে পার পেয়ে যাচ্ছে। হামলা মামলাতো আর থেমে নেই। কিন্তু আমার প্রশ্ন হলো তিনি যে এতো বড় বড় কথা বলেন তার সবইতো তিনি বলেন রাস্ট্র ক্ষমতার অপব্যাবহার করে।

 

 

এতোই যদি আপনার জনপ্রিয়তা থাকে থাকে তাহলে প্রশাসনকে বাদ দিয়ে পারলে রাজনৈতিক ভাবে মোকাবেলা করুন না। তার এসব হুমকি ধমকিকে বিএনপির নেতাকর্মীরা মোটেও ভয় পায় না। প্রশাসনকে ব্যাবহার করে আমাদের বিরুদ্ধে কাপুরুষের মতো মিথ্যা মামলা দিয়ে, নেতাকর্মীদের বাড়িতে ও অফিসে হামলা চালিয়ে এখন তারা মধ্যযুগীয় বর্বরতা শুরু করেছেন।

 

 

আমাদের দলের উপর টানা পনেরো বছর ধরে চলছে নির্য়াতন। কিন্তু বিএনপির একজন নেতাকর্মীও কি তাদেরকে ভয় পেয়ে দল ছেড়েছে? শত শত মামলা মাথায় নিয়ে দেড় দশক ধরে জনগনের অধিকার আদায় করার জন্য বিএনপি মাঠে রয়েছে। আগামী দিনেও থাকবে ইনশাআল্লাহ। বরং তাকে আমি বলবো এবার থামুন, বয়সতো আপনার কম হলো না।

 

 

টিভির টকশোতেও গিয়ে কথা বলেন, কিন্তু মানষিকতারতো কোনোই পরিবর্তন হয়নি। এবার থামুন। শুধু আপনাকে এই টুকু বলবো, খুব শিগগিরই তুমুল আন্দোলনের মাধ্যমে আপনাদের পতন ঘটবে ইনশাআল্লাহ। আপনাদের এমন আচরনের জন্যই আজ আপনাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশতো বটেই সারা বিশ্ব সোচ্চার হয়ে উঠেছে। বিদায়ের আগে পাগলামী বন্ধ করুন, অন্যথায় কর্মের ফল আপনাদেরকেই ভোগ করতে হবে ইনশাআল্লাহ।   এন.হুসেইন রনী /জেসি

এই বিভাগের আরো খবর