মঙ্গলবার   ২৫ জুন ২০২৪   আষাঢ় ১১ ১৪৩১

মনির কাসেমীর গলা চড়া

যুগের চিন্তা রিপোর্ট

প্রকাশিত: ৫ জুন ২০২৪  

 

 

হাক-ডাক দিয়ে রোববার নতুন শিক্ষা ব্যবস্থা বাতিলের দাবী জানিয়ে নারায়ণগঞ্জ হেফাজতে ইসলাম সভা করেন। নগরীর চাষাঢ়া শহীদ মিনারে মহানগর হেফাজতে ইসলামের সভাপতি মাওলানা ফেরদাউসের সভাপতিত্বে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু এই সভা যেন শিক্ষ্ াবাতিলের দাবীর চেয়ে ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় নেতাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানোর এবং তাদের প্রতি হুঙ্কার  দেয়ার সভা হয়েছে। 

 

কেননা গত ১০ ফেব্রুয়ারি নামাজের সময় উচ্চস্বরে গান বাজানোয় নারায়ণগঞ্জ শহরের দেওভোগে শেখ রাসেল পার্কের ভেতরে পার্ক লাউঞ্জ রেস্টুরেন্টে হামলা চালান ডিআইটি মসজিদের মুসল্লীরা। এই ঘটনায় মহানগর হেফাজতে ইসলামের সভাপতি মাওলানা ফেরদাউসকে আসামি করে তার প্রায় দেড় মাস পরে নাসিক কর্মকর্তা মামলা করেন। তা নিয়ে হেফাজত এবং আওয়ামী লীগ নেতারা পাল্টা পাল্টি বক্তব্য দিয়ে উত্তপ্ত পরিবেশ তৈরী করে। হেফাজতের শিক্ষা ব্যবস্থা বাতিল দাবি সভা যেন রাসেল পার্কের ঘটনা নিয়ে প্রতিবাদ সভায় রুপান্তরিত হয়।

 

এদিকে গত রোবারের হেফাজতের সভা থেকে মাওলানা ফেরদাউসের উপর মালা হওয়ায় তার নিন্দা জানান হেফাজত নেতারা। সেই সাথে নারায়ণগঞ্জের ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের ভালো হয়ে যেতে হুঙ্কার প্রদান করেন। তবে এখানে দুজনের নাম উল্লেখ্য করলেও নাসিক মেয়র আইভিকে হুঁশিয়ারি প্রদান করেন। এছাড়া জেলার বাম নেতাদেরও তারা ছাড় দেন নাই। তাদের নিয়ে কঠোর হুঁশিয়ারি দেন। যা নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে ব্যপক আলোচনা তৈরী হয়েছে। 

 

হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক অর্থসম্পাদক ও জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের কেন্দ্রীয় নেতা মুফতি মনির হোসাইন কাসেমী ওই সভায় বলেন, আমরা ও তো আওয়ামী লীগ নিয়ে কোন এলার্জিতে ভোগী না। 

 

আপনারা তো আওয়ামী লীগের উপরে ছাওয়ার হয়ে আছেন, ম্যাডাম নিজের কাজ নিজে করে যাচ্ছেন। কিন্তু আপনার পরিচয় কি, আপনি কোন পরিচয়ে ম্যাডামের নাম বিক্রি করে করে আব্দুল আউয়াল হুজুরের নামে কটূক্তিপূর্ণ বক্তব্যে রাখেন। আপনি কোন ভাষায় আব্দুল আউয়াল সাহেবকে নিয়ে নোংরা ভাষায় বক্তব্যে রাখেন, ভালোয় ভালোয় ভালো হয়ে যান, আর না হয় কিভাবে ভালো করতে হয় হেফাজত ইসলাম তা ভালো করেই জানে।

 

হেফাজত নেতা মনির কাসেমি বলেন, যারা রাসেল পার্ক নামে একটি প্রতিষ্ঠান বানিয়েছে খুব সুন্দর প্রসংশার দাবিদার, তারা খুব ভালো কাজ করেছেন সেখানে আমাদের নারায়ণগঞ্জের সকলে একটি শ্বাস ফেলতে যাবে, ভাইয়ে ভাইয়ে ঘুরতে যাবে, ভাই বোনকে নিয়ে যাবে, মা তার যুবক ছেলেকে নিয়ে যাবে, বাবা তার যুবতী মেয়েকে নিয়ে যাবে এর জন্য বানানো হয়েছে। কিন্তু সেখানে কোন কপোত-কপোতীর লিলাখেলা দেখানোর জন্য বানানো হয় নাই।

 

তিনি আরো বলেন, আপনারা সেখানে লিলা খেলা খেলবেন, আল্লামা আব্দুল আউয়াল দা.বা সাহেব আর মাওলানা ফেরদাউসুর রহমান যদি কোন কথা বলে থাকে, তাদের নামে আপনারা মামলা ঢুকিয়ে দিবেন এতো বড় বুকের পাটা আপনাদের হয়ে গেছে, আমরা যখন জেগে উঠবো আর যাই হোক রফিউর রাব্বির মতো মানুষ একজন বয়স্ক মানুষ, আনিসুর রহমান দিপু আপনারা সেই বয়সের সম্মান টুকু রাখেন নাই। এতো কটূক্তি কথাবার্তা এই মজলিস থেকে আমরা তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। তিনি আরো বলেন, অতিবিলম্বে ফেরদাউসুর রহমান সাহেব এবং আব্দুল আউয়াল সাহেবের বিরুদ্ধে যে মামলা সেই সমস্ত মামলা প্রত্যাহার।

 

তাই রাজনৈতিক মহলে আলোচনা হচ্ছে ম্যাডাম বলতে মনির কাসেমি কাকে বুঝিয়েছেন তার নাম প্রকাশ না করলেও কারো বুঝতে বাকি নেই। কেননা হেফাজত নেতা ফেরদাউসকে মামলায় আসামি করায় তারা মেয়র আইভীকে নিয়ে কটাক্ষ করে বক্তব্য রাখেন। আর এজন্য এড. আনিসুর রহমান দিপু তার প্রতিবাদ জানান। সেই সাথে সাংস্কৃতিক ব্যক্তি রফিউর রাব্বি মানব বন্ধন করেন মেয়রের পক্ষে। এজন্য হেফাজত নেতারা তাদের তুলো ধুনো করেন।

 

 তাছাড়া মনির হোসেন কাসেমি ২০১৮ সনের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি থেকে মনোনীত হয়ে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও বর্তমান নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের আমেপি শামীম ওসমানের সাথে প্রতিদ্বন্দিতা করেন। তাই সচতেন মহল বলছে মনির হোসেন কাসেমী কাকে ভালো হতে বললেন।

 

এই বিভাগের আরো খবর