মঙ্গলবার   ১৯ অক্টোবর ২০২১   কার্তিক ৩ ১৪২৮

মাদক মামলায় গ্রেফতার হওয়া দুলালকে দাদা’র প্রার্থী ঘোষণা

যুগের চিন্তা অনলাইন

প্রকাশিত: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১  

মাদক মামালায় গ্রেপ্তার হওয়া আসামী সাইফুদ্দিন আহমেদ দুলাল প্রধানকে আবারও নাসিকের ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেছেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এড. খোকন সাহা । এ নিয়ে দলে এবং দলের বাইরে বিভিন্ন সমালোচনা তৈরি হয়েছে।  সচেতন মহলে প্রশ্ন উঠেছে একজন বিতর্কিত ব্যক্তিকে আবারো কেন জনপ্রতিনিধি হিসেবে চাইছেন দাদা।

 

সচেতন মহল বলছেন,  মানুষ একজন মাদক মামলার আসামী থেকে কি ই বা সেবা পাবে। তাদের মতে ভালো মানুষের কাছে ভালো কাজ আশা করাটা স্বাভাবিক। কিন্তু যারা মাদক  মাদক মামলার আসামী এবং সামজে বিভিন্ন অপকর্মে করে বেড়ায় তারা যদি জনপ্রতিনিধি হয়, তাদের কাছ থেকে জনগণ কিভাবে ভালো কাজের আশা করবে। 

 

মঙ্গলবার বিকেলে বন্দর পৌরসভা মোড়ের ২৩ নম্বর ওয়ার্ড এলাকায় এক কর্মী সভায় মহানগর স্বেচ্ছা সেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক ও নাসিক কাউন্সিলর সাইফুদ্দিন আহমেদ দুলাল প্রধানকে আবারও প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেন আওয়ামীলীগ নেতা খোকন সাহা। যাকে সবাই খোকন দাদা বলে ডাকেন। তারও এই নাম শুনতে ভালো লাগে। খোকন দাদা নামে বেশ পরিচিত তিনি। 

 

ওই সভায় মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা বলেন, কাউন্সিলর দুলাল খুব ভালো মানুষ। এই এলাকার মানুষ তাকে পছন্দ করে। তাই আমরা আবারও তাকে আওয়ামীলীগ হতে এক প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করলাম। সেই সাথে এখানকার মুরুব্বী মহানগর আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রিড়া বিষয়ক সম্পাদক হুমায়ুন কবির মৃধার হাতে তাকে তুলে দিয়ে গেলাম। এসময় বিতর্কিত দুলাল প্রধানের জন্য তিনি মানুষের কাছে আগামী নাসিক নির্বাচনের জন্য ভোট চান।


স্থানীয় মানুষ জানান, ক্ষমতাসীন দলের রাজনীতিবিদ ও আইনজীবি হয়ে কি করে মাদক ব্যবসায়ীর জন্য ভোট চাইলেন। কেননা যারা মাদক কারবারী করে তারা কখনো ভালো মানুষ হতে পারে না। এরা সমাজের এবং দেশের সুত্র। কাউন্সিরল দুলাল মাদকসহ পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের হাতে গ্রেপ্তার হন। যা সবাই জানে। এমন একজন ব্যক্তিকে আমরা মেনে নিতে পারি না। আগামী সিটি নির্বাচনে মানুষ তাকে বয়কট করবে। সচেতন মহলে মতে তাই করা উচিৎ। তারা এবারযোগ্য ব্যক্তিকে বেঁেছ নিবে। 

 

উল্লেখ্য, ২০১৯ সনের ২ আগষ্ট রাতে শহরের নবীগঞ্জ ফেরী ঘাট এলাকা থেকে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ২৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদ দুলাল প্রধানকে মাদকসহ গ্রেপ্তার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ ডিবি। এসময় তার আরও ৫ সহযোগিকে গ্রেপ্তার হয়। সহযোগিরা হলেন, কামাল হাসান (৪৭) মনির হোসেন মনু (৫০), তানভীর আহম্মেদ সোহেল (৪১), মো. মজিবর রহমান (৫২)। পুলিশ সুত্রে জানাযায়, জেলা ডিবি পুলিশ সদস্যরা গোপন সূত্রে জানতে পারে একটি সাদা মাইক্রোবাসে কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ী মাদক নিয়ে নবীগঞ্জ ঘাট পার হচ্ছে। পরে ডিবির একটি দল নবীগঞ্জ ঘাট অতিক্রম করার সময় গাড়িটি আটক করে।

 

এসময় ওই গাড়ীতে নাসিক কাউন্সিলর দুলাল প্রধানকে পাওয়া যায়। একই সাথে গাড়ী থেকে ৫০ বোতল ফেন্সিডিল ও ৩২ হাজার টাকা জব্দ করা হয়। এঘটনায় তখন পুলিশ জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মাদকের সাথে নিজের সংশ্লিষ্টতার  কথা স্বীকার করেছেন কাউন্সিলর দুলাল প্রধান। তিনি মহানগর স্বেচ্ছা সেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক পরিচয়ের আড়ালে দীর্ঘদিন ধরে ফেনসিডিলের ব্যবসা করে আসছেন এ কথাও জানান। এই ঘটনায় এই জনপ্রতিনিধি জেলও খাটেন।