মঙ্গলবার   ১৯ অক্টোবর ২০২১   কার্তিক ৩ ১৪২৮

রঙ তুলির আঁচড়ে দেবী দুর্গা মণ্ডপে মণ্ডপে শেষ মুহূর্ত্বের প্রস্তুত

মামুনুর রহমান

প্রকাশিত: ৯ অক্টোবর ২০২১  

দরজায় কড়া নাড়ছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। আসছে ১১ অক্টোবর থেকে শুরু হচ্ছে সনাতন ধর্মাবম্বীদের ৫দিন ব্যাপী সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কাছে দেবী দুর্গা শক্তি ও সুন্দরের প্রতীক। প্রতিবছর অসুরের বিনাশ করতে মা দেবী দুর্গা এই ধরাধামে আবির্ভুত হয়।

 

তাই এ ধর্মের মানুষেরা মনে করেন সমাজ থেকে অন্যায়, অবিচার ও গ্লানি দূর করতে এই পূজার আয়োজন। আর এই উৎসবকে ঘিরেই নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগরের ২১৪টি পূজা মন্ডপে চলছে  প্রতিমা তৈরির শেষ মুহূর্তের কাজ। মাটির কাজ শেষে এখন চলছে প্রতিমায় রঙ ও সাজসজ্জার কাজ। বাহারী রঙের আঁচড়ে দেবী দুর্গাকে সাজিয়ে তোলা হচ্ছে নানা রঙে-ঢঙে। আর পূজার সময় ঘনিয়ে আসায় এখন দিন রাত একাকার করে ব্যস্ত সময় পার করছেন মৃৎশিল্পীরা। ঘরে ঘরে চলছে আনন্দ উৎসব ও পূজার প্রস্ততি।

 


এদিকে গতকাল শুক্রবার শহরের বেশ কয়েকটি পূজা মন্ডপ ঘুরে এবং সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, শারদীয় দুর্গাপূজাকে সামনে রেখে পুরোদমে প্রতিমা তৈরির কাজ চলছে। দিন রাত প্রতিমা শিল্পীরা কাজ করছেন। খড় আর কাঁচামাটি ও রংয়ের কাজ শেষে এখন নানা সাজসজ্জ্বায় দেবী দুর্গা, সরস্বতী, লহ্মী, কার্ত্তিক ও গণেশসহ সকল দেবতাদের বর্ণিল করে তোলার কাজ চলছে। আর এই দুর্গাপূজাকে  কেন্দ্র করে মন্ডপে মন্ডপে চলছে শেষ মুহুর্তের প্রস্তুতি। প্রতিমা শিল্পীর তুলির আঁচড়ে যেন প্রায় সঞ্চারিত হচ্ছে মা দুর্গার। প্রতিমা কারিগরদের যেন দম ফেলার সময় নেই। শহরের আমলাপাড়া সার্বজনীন পূজা মন্ডপের প্রতিমা শিল্পী শিপনাথ বিশ্বাস বলেন, প্রতিমায় মাটির কাজ শেষে এখন চলছে রঙ ও সাজসজ্জার কাজ। আর একদিনের মধ্যে রঙের কাজ শেষ হবে। এখন খুব ব্যস্ততার মধ্যে সময় কাটছে।


জানা গেছে, এবছর জেলা ও মহানগরে  মোট ২১৪টি  পূজা মন্ডপে শারদীয় দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। করোনা মহামারির কারণে এবার ভিন্ন পরিবেশে উদযাপিত হবে সনাতন সম্প্রদায়ের সর্ববৃহৎ এই ধর্মীয় উৎসব। করোনাকে মাথা রেখে পূজা উদযাপনের জন্য প্রস্তুতিও সম্পন্ন করা হয়েছে। ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় পূজা উদযাপন পরিষদ থেকে দীক নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তবে আগে যেরকম বণার্ঢ্যভাবে প্রতিমা তৈরি করা হত এবার তা হয়েছে কিছুটা ছোট আঙ্গিকে। করোনাকালীন হলেও দুর্গাপূজাকে সুষ্ঠু, সুন্দর ও নিরাপদভাবে সম্পন্নের লক্ষ্যে জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও পূজা কমিটির পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে সব ধরনের ব্যবস্থা। ইতোমধ্যে পূজা কমিটির নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করেছেন জেলা  প্রশাসক ও পুলিশ সুপার।

 


নারায়ণগঞ্জ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি দীপক কুমার সাহা ও সাধারণ সম্পাদকন শিখণ সরকার শিপন জানান, কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক উৎসব উদযাপনের সব প্রস্তুতি নিয়েছে নারায়ণগঞ্জ পূজা উদযাপন পরিষদ। ইতিমধ্যে প্রস্তুতিমূলক সভা, জেলা প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা মিটিং হয়েছে। সংশ্লিষ্ট প্রশাসন আমাদের পূজা উদযাপন করতে সব ধরণের সহযোগিতা করছেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমরা পাঁচ দিনব্যাপী শারদীয় উৎসব পালন করবো।

 

তবে করোনার আগে যেমন বাড়তি জাঁকজমকপূর্ণ হতো, সেটা এবার হবে না। এবার করোনা মহামারির কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই দুর্গাপূজা উদযাপন করা হবে। এজন্য নেতৃবৃন্দ জেলার সকল শ্রেণিপেশার মানুষের সহযোগিতা কামনা করেন তারা।