বৃহস্পতিবার   ২৪ জুন ২০২১   আষাঢ় ১০ ১৪২৮

রাতের শহরে নয়া নরপতি!

যুগের চিন্তা অনলাইন

প্রকাশিত: ৫ জুন ২০২১  

তিনি কোনো রাজনৈতিক নেতা নন। হঠাৎ করেই রাতের শহরে তার পদচারণা বেড়ে গেছে। প্রতিরাতেই বিশাল মোটরসাইকেল বাহিনী দিয়ে তিনি দিয়ে যাচ্ছেন মহড়া। সাথে ট্যাক্সি ও মোটর সাইকেল থেকেও ভেসে আসে সাইরেনের শব্দ। অনেকে বলছেন শহরে নতুন যুবরাজের আমদানী হয়েছে। আসলে তিনি কোনো যুবরাজ নয়।  শহরে বেশ কিছু ফেস্টুন সাটিয়ে সম্প্রতি তিনি তার উপস্থিতি জানান দিচ্ছে। 

 


রাত ১২ টা। শহরের খানপুর হাসপাতালের মোড়ে একটি ট্যাক্সি। ধীরে ধীরে সেখানে জড়ো হতে থাকলো ১০/১৫ টি মোটর সাইকেল। এর মধ্যে পুলিশের একজন সদস্যও একটি মোটর সাইকেল নিয়ে এসে ঐ দলে যোগ দিলো। চলছিল চা পানের পর্ব। এরপর ট্যাক্সিতে গিয়ে বসলেন এক মধ্যবয়সী যুবক। হাতে তার কয়েক ধরণের রিং। আঙ্গুলে অদ্ভুত ধরনের আংটি।  মুহুর্তেই ট্যাক্সি থেকে বাজানো শুরু হলো সাইরেন। তার পিছনের মোটর সাইকেলগুলোও নবীগঞ্জের দিকে ছুটে চললো। এই চিত্র শুধু গত বুধবার রাতের নয়। আশপাশের লোকজন জানালেন, প্রতিরাতেই এই মহড়া চলে শহর থেকে নগরে। 

 


নারায়ণগঞ্জে রাতের শহর থাকে নীরব। তবে চাষাঢ়ার মোড়  কিছু মানুষের আনাগোনা থাকে। রাতে খুব কম সংখ্যক মানুষ মোটর সাইকেলে করে চলাফেরা করে। তবে গত ২ মাস ধরে হঠাৎ করেই একটি বাহিনী শহর, থেকে নগরে বিভিন্ন মহল্লায় মহড়া দিয়ে আসছে। এই মহড়াটি চলে খানপুর হাসপাতালের সামনে থেকে পাঠানটুলী, পঞ্চবটি, সাইনবোর্ড ও মাসদাইর এলাকার বিভিন্ন গলিতে। রাতের আঁধারে বিভিন্ন এলাকায় সাইরেন বাজিয়ে ওরা আতঙ্কের সৃষ্টি করে বলে একাধিক ব্যক্তি নিশ্চিত করেছে। বিশেষ এক ব্যাক্তির লোক পরিচয়ে  রাতের নীরব শহর দাবড়িয়ে বেড়াচ্ছে বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

 

 
খানপুর এলাকার একজন বাসিন্দা জানান, আগে কখনো এই বাহিনী চোখে পড়েনি। ঐ ব্যক্তির বেশ কিছু ছবিযুক্ত ফ্যাস্টুন শহরের বিভিন্ন অলি গলিতে ইতিমধ্যে সাঁটানো হয়েছে। রাত ১১ টার পর থেকে শহরের খানপুর হাসপাতালের মোড়ে বেশ কিছু এলাকার যুবকদের আনাগোনা বাড়তে থাকে। সংখ্যায় হয়ে যায় ১০/১৫ জন। কি তাদের কাজ, কেনোই বা তারা জড়ো হয়ে মহড়া দেয় এসব কিছু তাদের অজানা বলেও জানান। ট্যাক্সিতে থাকা ব্যাক্তি সম্প্রতি একজন প্রভাবশালী পরিবারের সদস্যের ছবির সাথে তার ছবি যুক্ত করেছেন। আর এই প্রভাবে তিনি রাতের আধারে মহড়া দিয়ে যাচ্ছেন।

 

 
পাঠানটুলী এলাকার এক বাসিন্দা জানান, রাতে ইদানিং বেশ কিছু মোটরসাইকেল ও একটি ট্যাক্সির মহড়া চলে। ভয়ে এলাকার জনগন আতকে উঠে। গাড়ির সাইরেনে শিশু থেকে শুরু করে অসুস্থ রোগীরা আঁতকে উঠে। ভয়ে কেউ বাসা থেকে বের হন না। তারা কি করে, কোথায় যায় কেউ জানে না। প্রতিরাতেই এ ধরনের মহড়ায় তারা আতংকিত বলেও জানান। 
 

এই বিভাগের আরো খবর