মঙ্গলবার   ২৫ জুন ২০২৪   আষাঢ় ১১ ১৪৩১

লাইসেন্সবিহীন হাসপাতালের বিরুদ্ধে অভিযান চলবেই

রূপগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৭ জুন ২০২৪  


উপজেলা পর্যায়ে স্বাস্থ্যসেবার মান বাড়াতে হবে। এখানে কোন রোগী সরকারী সেবা বঞ্চিত হলে এর দায় সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকেই নিতে হবে।কোন রকম গাফিলতি থাকলে কঠোর শাস্তি পেতে হবে বলে হুঁশিয়ারী দিয়েছেন  স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা  মন্ত্রী ডাক্তার সামন্ত লাল সেন। পাশাপাশি লাইসেন্স বিহীন বেসরকারি হাসপাতাল বন্ধের অভিযান আগের মতোই চলবে তাই অনিয়ম পেলেই ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি বলেন, মনে রাখতে হবে জীবন একটাই, এ জীবন নিয়ে চিকিৎসার নামে কোন প্রকার হয়রানি মেনে নেয়া হবে না।

 

 

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে রূপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সেবার মান ও রোগীদের হালচাল  পরিদর্শনে আসেন তিনি। এ সময় হাসপাতালের বিভিন্ন বিভাগ, রোগীদের ওয়ার্ড,কেবিন, স্টোর রুম, পরীক্ষণ যন্ত্রাদিসহ ডাক্তারদের চেম্বার ঘুরে দেখেন তিনি। পরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আয়োজনে এক মতবিনিময় সভায় বক্তব্য প্রদানকালে এমন হুঁশিয়ারি দিয়ে মন্ত্রী আরও বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোকে আরও সক্রিয় করতে সরকার কাজ করছে। তবে উপজেলা পর্যায়ে যতগুলো হাসপাতালে দেখলাম, তার মাঝে রূপগঞ্জের এ হাসপাতালটির সার্বিক পরিবেশ ভালো।  রোগীরা যাতে সেবা বঞ্চিত না হয় সেদিকে খেয়াল রাখার নির্দেশ দিচ্ছি।    

 

 

এ সময় স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রী সামন্ত লাল সেন হাসপাতাল পরিদর্শন শেষে রূপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মিলনায়তনে  আয়োজিত  এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ ১ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতিক এমপি। এতে সভাপতিত্ব করেন রূপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার আইভী ফেরদৌস।  

 

 

বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের  অতিরিক্ত মহা পরিচালক বিগ্রেডিয়ার মাইনুল হাসান,  হাসপাতাল পরিদর্শক ডাক্তার আবু হোসেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন আবুল ফজল মোঃ মশিউর রহমান,রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হাবিব, রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান মাহমুদ রাসেল, রূপগঞ্জ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি দীপক চন্দ্র সাহাসহ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ও কর্মচারীসহ স্থানীয় গন্যমান্যরা। 

 

 

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতিক এমপি বলেন, আমাদের শেখ হাসিনা সরকার সুযোগ্য একজন মন্ত্রী দিয়েছেন স্বাস্থ্য বিভাগে। যেখানে আমরা সকাল ৮ টায় তাকে অভ্যর্থনা জানানোর কথা। তিনি ৫ মিনিট আগেই চলে এসেছেন। উল্টো আমাদের রিসিভ করেছেন। এমন একজন দায়িত্বশীল মানুষ খুব দরকার। আমরা আশা করি রূপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দিন দিন সেবার মান আরও বাড়বে। গত ১৫ বছরে ব্যাপক বরাদ্দ দিয়েছি। এর দিকে সরকারের নজর রয়েছে।  তাই সবচেয়ে আধুনিক চিকিৎসা সেবা এখান থেকেই পাবে রোগীরা। 

 

 

এসময় সভাপতির বক্তব্যে ডাক্তার আইভী ফেরদৌস বলেন, হাসপাতালটিতে আমি যোগদানের পর বঙ্গবন্ধু কর্ণার, ইসিজি,আলট্রাসনো,  এক্সরে,  সিজারসহ বড় ধরনের অস্ত্রোপচারের সব রকম সেবা দিয়ে আসছি। রোগীর স্বজনরা যাতে হাসপাতালের সামনে সুন্দর পরিবেশ পায় তার জন্যে বাগান  করে দেয়া হয়েছে। নদীর পারে হওয়ায় নির্মল পরিবেশ আর ডাক্তারদের আন্তরিকতায় কোন রোগী সেবা বঞ্চিত হয় না।

 

 

তবে ঔষধ সংকট,জনবল সংকটের সমস্যা থাকলেও সেবাপ্রার্থীদের বুঝিয়ে আমরা তাদের সর্বোচ্চ সেবা দিয়ে থাকি। এ সময় তিনি আরও বলেন,মাননীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী উপজেলা পর্যায়ে আমার দায়িত্বপালনকালে পরিদর্শন করেছেন এবং সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এটা আমার বড় প্রাপ্তি।  এন. হুসেইন রনী /জেসি

এই বিভাগের আরো খবর