বুধবার   ১৯ মে ২০২১   জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪২৮

শপিংমলে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি, নেই জীবাণুনাশকের ব্যবস্থা

মামুন খান

প্রকাশিত: ২৬ এপ্রিল ২০২১  

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের মধ্যে ব্যাপক সংখ্যক মানুষের জীবন-জীবিকার বিষয় বিবেচনা করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে রোববার থেকে শপিংমলগুলো সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত  খোলা রাখার অনুমতি দিয়েছে সরকার।

 

তবে এই সময় যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব ব্যবসায়ীকে শপিং খুলতে হবে বলে নির্দেশ দেয়া হয়। মার্কেট বা শপিংমলের সামনে জীবাণুনাশক টানেল, হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা করতে হবে। তবে শহরের মার্কেট গুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনো বালাই নেই। সরকারি নির্দেশনা দেয়া হলেও মানতে নারাজ মার্কেট ব্যবসায়ীরা। কোন প্রকার স্বাস্থ্যবিধি না মেনে, জীবাণুনাশকের ব্যবস্থা না করেই খোলা হয়েছে মার্কেটগুলো। কিছু মার্কেটের সামনে চোখে পড়ে অকেজো জীবাণুনাশক টানেল। সামাজিক দুরত্ব রয়েছে শূন্যের কোঠায়। ক্রেতা বিক্রিতা কারো মধ্যেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কোন লক্ষণ বা ইচ্ছা প্রকাশ পায়নি।

 

রোববার সরেজমিনে শহরের চাষাঢ়া ও ডিআইটি এলাকাসহ বঙ্গবন্ধু সড়কের আশেপাশের মার্কেট গুলো ঘুরে এমন চিত্র দেখা যায়। চাষাঢ়া সমবায় মার্কেট, শান্তনা মার্কেট, বেইলী টাওয়ার, মার্ক টাওয়ার, লুৎফা টাওয়ার, পানোরামা প্লাজা, সায়াম প্লাজা, ডিআইটির টোকিও প্লাজা, বর্ষণ মার্কেট, এফ রহমান মার্কেটসহ বিভিন্ন মার্কেট গুলোতে সকাল থেকেই ছিলো ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড়। ক্রেতা বা বিক্রেতা কারো মধ্যেই ছিলনা কোন সামাজিক দুরুত্ব মেনে চলার কোন তাগিদ।

 

সেখানে স্বাস্থ্য বিধির নাম মাত্রও ছিল না। ছিলো না জীবাণুনাশক বা হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার কিংবা তাপমাত্রা মাপার ব্যবস্থা। নেই জীবানুনাশক টানেল স্প্রে। কিছু কিছু মার্কেটের সামনে এসব টানেল অকেজো হয়ে পড়ে আছে, কোনো কাজ করছে না। হাতে গুনা দু’একটি মার্কেটে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা থাকলেও বেশ কিছু মার্কেটের সামনে পানি আছে তো সাবান নাই। এ সব মার্কেটে মাস্ক ছাড়া প্রবেশেও নেই কোন বাধা। সরকারি নিয়মনীতি তেমন একটা মানছে না এসব শপিংমলে।

উল্লেখ্য, করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির কারণে ১৪ এপ্রিল থেকে সারা দেশে কঠোর লকডাউন শুরু হয়। তবে ব্যাপক সংখ্যক মানুষের জীবন-জীবিকার বিষয় বিবেচনা করে রোববার থেকে লকডাউনের শর্ত শিথিল করে সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান ও শপিংমল খোলা রাখা যাবে বলে জানায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনের বিষয়টি সংশ্লিষ্ট ব্যবস্থাপনা কমিটি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলেও নির্দেশ দেয়া হয়।
 

এই বিভাগের আরো খবর