রোববার   ২১ জুলাই ২০২৪   শ্রাবণ ৬ ১৪৩১

শামীম ওসমানের বক্তব্য তামিল ছবির গডফাদারদেরও হার মানায়

যুগের চিন্তা রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১১ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

 

# আপনি কি না.গঞ্জের মালিক, এমপি হয়ে এমন কথা কি করে বলেন?
# ওনাকে এরেস্ট করা উচিৎ নইলে তিনি মানুষের ঠেংঠোং ভেঙ্গে দেবেন

 

 

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি একেএম শামীম ওসমানের চরম সমালোচনা করে দেশের একজন বিশিষ্ট সাংবাদিক গতকাল তার নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে বক্তব্য রেখেছেন। সাংবাদিক মাসুদ কামাল ‘রাজনীতির কথা’ নামক একটি ইউটিউব চ্যানেলে নিয়মিত দেশের রাজনীতি বিশ্লেষন করেন। এই চ্যানেলে তিনি বলেছেন একজন সংসদ সদস্য হয়ে শামীম ওসমান যে ভাষায় কথা বলেছেন এই ভাষায় তামিল ছবির গডফাদাররাও কথা বলেন না।

 

তিনি আরো বলেছেন, শামীম ওসমানের আগে থেকেই একটি পরিচিতি আছে যে পরিচিতিটাকে কোনো ভাবেই পজিটিভ পরিচিতি বলা যাবে না। তিনি এমপি হয়েছেন বটে কিন্তু মানুষ তাকে যতোটা না ভালোবাসে তার চেয়ে বেশি ভয় পান। তার কথাবার্ত যতোটা না পরিশিলিত তার চেয়ে বেশি উগ্র। তিনি বলেছেন তিনি বিএনপিকে চব্বিশ ঘন্টার মধ্যে নারায়ণগঞ্জ ছাড়া করবেন। কিন্তু আপনি কেনো তাদেরকে নারায়ণগঞ্জ ছাড়া করবেন? এই এখতিয়ার আপনাকে কে দিয়েছে?

 

আপনি কি নারায়ণগঞ্জের মালিক? মালিক আপনি? আপনি হয়তো ভাবেন আপনি মালিক, কিন্তু এটা কি সম্ভব? আপনি পারবেন? পারবেন নাতো। যেটা পারবেন না সেটা বলেন কেনো? বলে কেনো মানুষের কাছে হাঁসির পাত্র হন? আমি তার এসব কথা নিয়ে নারায়ণগঞ্জের কিছু মানুষের সাথে কথা বলেছি। তারা শুনে তাচ্ছিল্যের হাসি দিয়েছেন। তারা বলেছেন তিনিতো যা ইচ্ছে তাই বলেন। বলেন বাহাদুরি দেখানোর জন্য। মানুষের প্রতিক্রিয়াটি কি? মানুষ কি আপনার এসব কথা ভালো ভাবে নিচ্ছে?

 

আমি ধরে নিলাম ওনার মাঝে একটি ইমোশন কাজ করেছে। নারায়ণগঞ্জে নাকি বিএনপির লোকেরা শেখ হাসিনাকে গালি দিয়েছে, কটুক্তি করে কথা বলেছে। তাই তিনি বলেছেন বিএনপিকে তিনি চব্বিশ ঘন্টার মাঝে নারায়ণগঞ্জ ছাড়া করবেন। শামীম ওসমান বলেছেন তিনি বিএনপিকে এমন কঠোর জবাব দেবেন যে উঠে দাঁড়াতে পারবেন না। তাহলে তিনি সবাইকে ফিজিক্যালি এ্যাটাক করবেন, পা ভেঙ্গে দেবেন। সবাইকেতো পারবেন না। হয়তো তিনি ধরে ধরে কিছু মানুষকে ক্ষতি করবেন।

 

এই কাজ কি তিনি করতে পারেন? তাকে তো এরেস্ট করা উচিৎ। ওনাকে ধরে নিয়া যাওয়া উচিৎ, কেনোনা ইনিতো বাহিরে থাকলে মানুষের ঠেংঠোং ভেঙ্গে দেবে। আবার বলেছেন আমার কোনো পুলিশের দরকার পরবে না। জনগন যদি নির্দেশ দেয় তাহলে কারো বাড়িঘর রক্ষা পাবে না। কি করবেন আপনি? ওনাদের বাড়িঘরে হামলা করবেন? আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেবেন? তারপর বলবেন জনগন এসব করেছে? এখানে আবার তিনি জনগনকে ঢুকিয়ে দিয়েছেন।

 

কোনো সুস্থ সমাজে কোনো সুস্থ মানুষ তার উপর আবার তিনি একজন জনপ্রতিনিধি এমন কথা কি করে বলেন? আমারতো মনে হয় যে আমরা যে তামিল ছবি দেখি সেই ছবির গডফাদাররা যে ভাষায় কথা বলে তাদেরকেও হার মানিয়েছেন। মাসুদ কামাল বলেন আমি ভেবে উঠতে পারি না একজন সংসদ সদস্য কিভাবে এমন অশ্লীল ভাষায় কথা বলতে পারেন।

 

আপনি যেই হোন না কেনো এই দেশ, এই দেশের আইন আপনাকে এসব করার অনুমোদন দেয়নি। এসব কোনো এমপির ভাষা হতে পারে না এসব মাস্তানের ভাষা। আমি আওয়ামী লীগের দলীয় প্রধান এবং নীতি নির্ধারকদের বলবো আপনারা দেখেন ওনার মস্তিষ্ক ঠিক আছে কিনা। আর না হলে ওনাকে থামান। এস.এ/জেসি

এই বিভাগের আরো খবর