রোববার   ১১ এপ্রিল ২০২১   চৈত্র ২৭ ১৪২৭

শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবির ঘটনায় বিআইডব্লিউটিএ’র মামলা

যুগের চিন্তা রিপোর্ট

প্রকাশিত: ৭ এপ্রিল ২০২১  

শীতলক্ষ্যায় কোস্টার জাহাজের ধাক্কায় যাত্রীবাহী লঞ্চ দুর্ঘটনায় ৩৪ জনের প্রাণহানির ঘটনায় মামলা দায়ের করেছে বিআইডব্লিউটিএ। মঙ্গলবার ৬ এপ্রিল রাতে বিআইডব্লিউটিএ’র ভারপ্রাপ্ত উপপরিচালক বাবু লাল মৈত্র মামলাটি দায়ের করা হয় (মামলা নং-৬)।  

 

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, দুর্ঘটনার জন্য দায়ী কার্গো জাহাজের অজ্ঞাতনামাদের আসামী করে ইনল্যান্ড শিপিং অর্ডিন্যান্স ১৯৭৬ এর ৭০, পেনাল কোডের ২৮০, ৩০৪, ৩২৯, ৩৩৮, ৪২৭, ৪৩৭ ধারায় মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।

 

মামলার বিষয়ে বাদী  বাবু লাল মৈত্র জানান, ‘শীতলক্ষ্যায় দুর্ঘটনার জন্য কার্গো জাহাজটির বেপরোয়াভাবে চালানো এবং অবৈধ প্রতিযোগিতাকে দায়ী করা হয়েছে।’

 

প্রসঙ্গত, প্রসঙ্গত, গত রোববার (৪ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৫ টা ৫৬ মিনিটে ‘সাবিত আল হাসান’ বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ টার্মিনাল থেকে ছেড়ে যাওয়ার মাত্র ১৫ মিনিটের মাথায় নির্মাণাধীন শীতলক্ষ্যা তৃতীয় সেতু (চায়না ব্রীজ) ৬টা ১০মিনিটে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে লঞ্চটি। এসকেএল-থ্রি (এম ০১২৬১৩) নামের একটি কোষ্টার জাহাজ পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে যাত্রীবাহী জাহাজটিকে ২০০ মিটার টেনে নিয়ে যায়। দুর্ঘটনার মাত্র ১০মিনিট পরে কালবৈশাখী ঝড়ের কারণে উদ্ধার তৎপরতা ব্যাহত হয়। তবে বিআইডব্লিউটিএ, কোস্টগার্ড,  নৌবাহিনী, ফায়ার সার্ভিস, পুলিশের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় উদ্ধার তৎপরতা বেগবান করা হয়। টানা ১৯ ঘন্টার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সোমবার দুপুরে জাহাজটি উপরে তুলতে সক্ষম হন এবং মরদেহগুলো উদ্ধার করেন তারা। সোমবার দুপুরে লঞ্চটি পানির উপরে তুলে আনার পর নিহতের মরদেহ শীতলক্ষ্যার পশ্চিমপাড়ে সৈয়দপুর কয়লাঘাট থেকে মরদেহ গুলো সনাক্ত হওয়ার পর জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর শুরু করে।
 

এই বিভাগের আরো খবর