রোববার   ২৮ নভেম্বর ২০২১   অগ্রাহায়ণ ১৪ ১৪২৮

সরকারের ধারাবাহিকতা আছে বলেই দেশে এতো উন্নয়ন হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী

যুগের চিন্তা অনলাইন

প্রকাশিত: ২১ অক্টোবর ২০২১  

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মহামারির কারণে উন্নয়নের গতি কমে গেলেও দেশ থেমে থাকেনি, এগিয়ে যাচ্ছে দেশ। উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে বিনিয়োগে নতুন সুযোগ সৃষ্টি করা হবে। বিদেশে বিনিয়োগের প্রস্তুতি নিচ্ছে বাংলাদেশ। খুঁজে বের করতে হবে পণ্যের নতুন বাজার। রপ্তানিতে আয় বাড়ানোর জন্য কাজ করতে হবে। এ সরকারের ধারাবাহিকতা থাকায় উন্নয়ন করা সম্ভব হচ্ছে। রপ্তানির আয় বাড়াতে চাই পণ্যের বহুমুখীকরণ।

 

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় আয়োজিত প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে পূর্বাচলে নবনির্মিত বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ প্রদর্শনী কেন্দ্রের উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

 

শেখ হাসিনা বলেন, সরকারের ধারাবাহিকতা আছে বলেই দেশের এতো উন্নয়ন হচ্ছে। প্রতিবছর ১জানুয়ারি থেকে মাসব্যাপী এখানে বাণিজ্য মেলা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া রপ্তানি মেলা, রপ্তানিকারকদের সম্মেলন, ক্রেতা-বিক্রেতাদের মেলা, অন্যান্য বাণিজ্য বৃদ্ধিমূলক কর্মকান্ড আয়োজনের মাধ্যমে কেন্দ্রটির সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করা হবে।

 

পূর্বাচলের ৪ নং সেক্টরে প্রদর্শনীর কেন্দ্রে এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুন্সী’র সভাপতিত্বে এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক, গৃহায়ন ও পূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ, সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ, নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম, রূপগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ শাহ্জাহান ভুঁইয়া, রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ্ নুসরাত জাহান, কাঞ্চন পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলাম ও রূপগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ছালাউদ্দিন ভুঁইয়া প্রমুখ।
    


উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ২৬ অক্টোবর বাংলাদেশ ও চীনের অর্থায়নে প্রথমে ২০ একর ও পরে আরও ৬ দশমিক ১ একর জমি নিয়ে পূর্বাচল নতুন শহরের ৪নং সেক্টরে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ প্রদর্শনী কেন্দ্র নির্মাণ শুরু হয়। ২০২০ সালের ৩০ নভেম্বর ৮১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা হয়। এখানে ৮০০স্টল থাকবে। ভবনের দ্বিতীয় তলায় ৫০০টি এবং সামনের খোলা জায়গায় ১০০০টি গাড়ি পার্কিং করার সুযোগ রয়েছে। চলতি বছরের ৭ফেব্রুয়ারি কেন্দ্রটি সরকারের কাছে হস্তান্তর করে চীনা নির্মাতা প্রতিষ্ঠান চায়না স্টেট কনস্ট্রাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং, কর্পোরেশন। 


    
প্রদর্শনীকেন্দ্রটি সারাবছর বিভিন্ন পণ্যভিত্তিক মেলার স্থায়ী ভেন্যু হিসেবে ব্যবহৃত হবে। কেন্দ্রটিতে থাকছে পানি শোধনাগার, শিশুদের খেলার স্পেস, গেস্ট রুম, স্টোররুম, অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা, আধুনিক ফোয়ারা, ইলেক্ট্রনিক প্রবশ গেইট, নামাযের স্থান, মেডিকেল রুম, ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট, টয়লেট ও ইন্টারনেট সংযোগসহ সকল সুযোগ সুবিধা। 

এই বিভাগের আরো খবর