সোমবার   ২৬ জুলাই ২০২১   শ্রাবণ ১১ ১৪২৮

সুযোগ্য চেয়ারম্যানের প্রত্যাশায় সদর

যুগের চিন্তা অনলাইন

প্রকাশিত: ১২ জুলাই ২০২১  

# ধার-ভার নেই আজাদ বিশ্বাসের


# পরিবর্তন চায় জনগণ


# শাহ নিজামের পাল্লা ভারী


নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলায় দরকার একজন সুযোগ্য চেয়ারম্যান, যে নাকি এলাকাবাসীর সুখে দু:খে পাশে গিয়ে দাঁড়াবেন এবং সুখে দুঃখে মানুষের প্রতিনিধিত্ব করবেন। কিন্তু গত পনেরো বছর ধরে আজাদ বিশ্বাস এই উপজেলার চেয়ারম্যান। কিন্তু এলাকাবাসীর উন্নয়নে তিনি তেমন কোনো কাজই করছেন না।

 

তাই এখানে কোনো একজন কর্মঠ ও সুদক্ষ উপজেলার চেয়ারম্যান থাকা জরুরী বলে মনে করেন ফতুল্লা এলাকার মানুষ। এই ব্যাপারে ফতুল্লার ইসদাইর এলাকার সালাউদ্দিন বলেন, পনেরো বছর ধরে আমাদের একজন উপজেলার চেয়ারম্যান রয়েছেন। তিনি হলেন আজাদ বিশ্বাস। আমরা এমন অথর্ব উপজেলার চেয়ারম্যান আর কোথাও আছেন আগে কখনো শুনেনি। আমরা কি অবস্থায় আছি তিনি একবার এসে দেখেনও না। আসলে তার কোনো ধার-ভার কিছুই নেই। কেউ তার কথা শোনেন না। শুধু মাত্র পুতুলের মতো তাকে বসিয়ে রাখা হয়েছে। তাই আমরা মনে করি এখানে একটি পরিবর্তন দরকার। আমরা শুনেছিলাম আওয়ামী লীগ নেতা শাহ নিজাম এই উপজেলায় নির্বাচন করতে চান। তাই আমরা মনে করি যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব শাহ নিজামকেই সদর উপজেলার চেয়ারম্যান বানানো উচিৎ।

 

শাহ নিজাম যদি উপজেলার চেয়ারম্যান হতেন তাহলে আজ আমাদেরকে এতোটা দুর্ভোগ পোহাতে হতো না। আর এমপি শামীম ওসমানকেও এতোটা বিব্রতর পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হতোনা। তাই আমরা মাননীয় সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানের প্রতি আহবান জানাবো তিনি যেনো অবিলম্বে সদর উপজেলায় একটি নির্বাচনের ব্যাবস্থা করেন।

 


এদিকে লালপুর, বৃহত্তর ইসদাইর, গাবতলী, টাগারেরপাড় সহ ফতুল্লার বিশাল এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে নিরলস পরিশ্রম করে চলেছেন বেশ কয়েকজন ব্যক্তি। এরা হলেন আওয়ামী লীগ নেতা শাহ নিজাম, ফতুল্লা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মিছির আলী, ফতুল্লা ইউনিয়ন ৬নং ওয়ার্ডের মেম্বার আলী আকবর, উত্তর মাসদাইর গাবতলী এলাকার মেম্বার কামরুল হাসান এবং ইসদাইর এলাকার মুরুব্বী হাসেম মাস্টার। আর তাদের পেছনে থেকে দিক নির্দেশনা দিচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি একেএম শামীম ওসমান। ফতুল্লার ইসদাইরবাসীকে জলাবদ্ধতা থেকে মুক্ত করতে আন্তরিক ভাবে চেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ নেতা শাহ নিজাম। তিনি নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানের নির্দেশে ইসদাইরের জলাবদ্ধতা নিরসনে বিরাট ভ’মিকা রাখছেন।

 

কারণ যে স্থান দিয়ে বৃহত্তর ইসদাইর এলাকার পানি নিস্কাশিত হয় সেই স্থানটি বিভিন্ন জায়গা দখল করে রেখেছে অবৈধ দখলদাররা। এর মাঝে লিংক রোডের সাব রেজিস্ট্রার অফিসের সামনে পানি ওয়াপদার খালে পড়ার মুখে দখল করে দোকানপাট নির্মাণ করা হয়েছে। ফলে ওই স্থান দিয়ে পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি গিয়ে খালে পরছে না। তাই ওই স্থাপনাগুলি উচ্ছেদ করার জন্য আওয়ামী লীগ নেতা শাহ নিজামের হস্তক্ষেপ চাইলে তিনি মাঠে নামেন এবং নিজে উপস্থিত থেকে স্থাপনাগুলি উচ্ছেদ শুরু করেন। গত সাত দিন উচ্ছেদ করা হয়েছে। আর এই উচ্ছেদ অভিযানে সর্বক্ষণ উপস্থিত থেকে সহযোগীতা করছেন উল্লেখিত জনপ্রতিনিধি এবং নেতৃবৃন্দ।

 

এখন সেখানে বেকু চালিয়ে পরিস্কার শুরু করেছে সেনা বাহিনী। তাই এই কাজটি শেষ হলে সেখান দিয়ে আরো তাড়াতাড়ি পানি নামবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এক কথায় নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা এলাকার মানুষের উন্নয়ন দেখাশুনা করার জন্য যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব আজাদ বিশ্বাসকে সরিয়ে অন্য কাউকে চেয়ারম্যান বানাতে হবে। 
 

এই বিভাগের আরো খবর