সোমবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২২   অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৯

এমপি বলে কথা

লতিফ রানা

প্রকাশিত: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২  


 # যত অসুবিধাই হোক না কেন তাতে কারও মাথা ব্যথা নেই: যাত্রীগণ


# দীর্ঘ সময় আটকে রাখার ঘটনা এখানে প্রায় নিত্য-নৈমিত্তিক ঘটনা
 

 


 
তখন বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রাত প্রায় সাড়ে নয়টার কাছাকাছি। হাজীগঞ্জ-নবীগঞ্জ ফেরি ঘাটের হাজীগঞ্জ এলাকায় কমপক্ষে ৩০/৩৫টি মোটর সাইকেল, ডজন খানেক অটো ইজিবাইক, সিএনজি, তেলের লরি, ট্রাকসহ অর্ধশতরও বেশি যানবাহন অপেক্ষা করছিল কখন ফেরিটি এসে ভিড়বে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

যখন ফেরিটি নবীগঞ্জ ঘাট থেকে হাজীগঞ্জের উদ্দেশ্য রওয়ানা দিল তখন অপেক্ষারত যাত্রীরা একটু পুলকিত হতে শুরু করলো এই ভেবে যে, অবশেষে অপেক্ষার পালা শেষ হচ্ছে। ফেরিটি নদীর প্রায় চারভাগের তিনভাগ চলে এসেছে। কিন্তু একি! হঠাৎ ফেরির গতি বন্ধ হয়ে গেল, চলতে শুরু করলো উল্টোদিকে। অর্থাৎ নবীগঞ্জ ঘাটের দিকে।

 

 

 

 

 

 

 

 

ফেরিতে থাকা মোটর সাইকেলসহ অন্যান্য যানবাহনগুলো হর্ণ বাজাতে শুরু করলো (পরে জানতে পারলাম তারা ভাবছিল ফেরি ভুল করে উল্টো দিকে যাচ্ছে)। কিন্তু না, ফেরিটি পুনরায় নবীগঞ্জ ঘাটে ব্যাক করলো সেখান থেকে একটি বিশেষ গাড়ি নিয়ে আবারও রওয়ানা দিল হাজীগঞ্জের উদ্দেশ্যে।

 

 

 

 

 

 

 

 

যখন তিরে এসে পৌছল, যাত্রীরা তখন কারণ জানতে চাইলে ফেরির স্টাফরা বললো, আমাদের কিছু করার নাই। তাদের ফোন পাওয়ার সাথে সাথেই আমাদের যেতে হয়। দেখলেন না, আমরা কাছাকাছি এসেইতো পড়ছিলাম, কিন্তু যখন ঐ পার থেকে এমপির গাড়ি এসেছে বলে ফোন আসে তখন আমরা আবারও ফেরিটি সেখানে নিয়ে যাই এমপি খোকাকে (নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা) নিয়ে আসি।

 

 

 

 

 

 

 


 
সেখানে অপেক্ষায় থাকা মোটরবাইক চালক আশিকুর রহমান জানান, ফতুল্লা থেকে প্রায় উড়ে মোটর সাইকেল নিয়ে পৌছাই হাজীগঞ্জ ফেরিঘাটে। উদ্দেশ্য নয়টার কাছাকাছি সময়ের ফেরিটাকে ধরা। তা নাহলে আবার প্রায় দশটা বাজবে ফেরি ছাড়তে। প্রতিদিন রাতের শেষ সময়ের ফেরি অর্থাৎ রাত সাড়ে দশটার ফেরিতে যাতায়াত করা হয় বেশি।

 

 

 

 

 

 

 

 

আজ বাসায় একটু ইমারজেন্সী থাকায় আগে বের হতে হয়েছে। কিন্তু দুর্ভাগ্য (সাধারণত সকল বন্দরবাসীর ক্ষেত্রে যা হয় আরকি), আজ ফেরি একটু আগে ছেড়ে গেছে। তাই ঘাটে পৌছে দেখি ফেরি ঐ পার (নবীগঞ্জ ঘাটে), গাড়ি নামছে। তাই অপেক্ষায় আছি কখন ফেরি ছাড়বে। কারণ ঐ পার থেকে ফেরি ছাড়া মানে আমরা তারাতারি ফেরিতে উঠতে পারবো।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

কিন্তু একজন এমপির গাড়ির ফোন পেয়ে হঠাৎ করেই ফেরিটি সেসব যানবাহন সমেত ফেরিটি ঐপারেই ফিরে যায় এবং এমপিকে নিয়ে তারপর আসে। অটো চালক ইশতিয়াক বলেন, ভাই এটা নতুন কিছু নয়, শুধু এমপি, ডিসি না, আরও কত অফিসার রাজনৈতিক নেতা যে আছে, যারা আসবে বলে ফেরিটি ঘন্টার পর ঘন্টা আটকিয়ে রাখে চালকরা।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

প্রায় সময়ই দেখি ওমক নেতা ওমক অফিসার আসবে তাই যতক্ষণ তারা না আসবে ততক্ষণ ফেরি ঘাটে আটকে থাকবে ছাড়বে না। তারা আসলে তাদের নিয়ে তারপর যাব। যাত্রীদেরও কিছু করার নেই, তারা বাধ্য হয়েই বসে থাকে এখানে। এতে যার যত অসুবিধাই হোক না কেন তাতে কারও কোন মাথা ব্যাথা নেই।

 

 

 

 

 

 

 


 
ভিআইপি বা আমলাদের জন্য যানবাহন আটকিয়ে রাখা নতুন কিছু নয়। এর মধ্যে কার জন্য কি ধরণের প্রোটকল তার একটি বিশেষ তালিকাও আছে। তবে বিভিন্ন সূত্র থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী বাংলাদেশের কোনো সড়কেই কোনো ভিআইপি'র জন্য কোনো বিশেষ ব্যবস্থাপনা থাকার কথা নয়। বিধি অনুযায়ী তাঁদের জন্য নিরাপত্তা প্রটোকল থাকবে।

 

 

 

 

 

 

 

কিন্তু তাঁদের চলাচলের জন্য কোনো সড়ক বন্ধ বা অন্য কোনো যানবাহনের চলাচল বাধাগ্রস্ত করা যাবে না। বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ছাড়া চলাচলের সময় রাস্তার একপাশ ফাঁকা করে নিরাপত্তা দেয়ার বিধান আর কারুর ক্ষেত্রে নেই। বাংলাদেশি কোনো ভিআইপিও এই সুবিধা পাবেন না। তাঁরা সাধারণ নিয়মেই চলাচল করবেন।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

ভিভিআইপিদের যাতায়াতের নির্দিষ্ট সড়কটির এক পাশ ফাঁকা করে সাধারণ যান চলাচল বন্ধ করা হয়। এ ধরণের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের মুভমেন্টের ১৫ মিনিট আগে এ সম্পর্কিত তথ্য এসএসএফ ও ট্রাফিক বিভাগ একে অন্যকে জানিয়ে থাকে। এমনকি ভিআইপি ব্যক্তিদের সাইরেন বাজিয়ে রাস্তা ফাঁকা করে সড়কে চলাচলও অনুমোদিত নয়।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মন্ত্রী পদমর্যাদার কেউ সড়কে চলাচল করার সময় শুধু পুলিশি নিরাপত্তা পান, এর বাইরে কিছু নয়। বাস্তবে শুধু সড়ক পথ নয়, নৌ-পথে যানবাহন চলাচলের জন্য ব্যবহার করা ফেরিও ঘাটে দীর্ঘ সময় আটকে রাখার ঘটনা হাজীগঞ্জ-নবীগঞ্জ ফেরি ঘাটে এখন প্রায় নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

এর আগে ২০১৯ সালে মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি এক নম্বর ফেরিঘাটে এক যুগ্ম সচিবের অপেক্ষায় প্রায় তিন ঘণ্টা ফেরি না ছাড়ার ঘটনায় তিতাস ঘোষ নামের এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু ঘটেছিল বলে অভিযোগ উঠেছিল। নারায়ণগঞ্জের হাজীগঞ্জ-নবীগঞ্জ ফেরিঘাটে কোন ব্যক্তির জন্য ফেরি আটকিয়ে রাখা নিয়মিত ঘটনা বলে এখানকার একাধিক যাত্রীর অভিযোগ।    এন.এইচ/জেসি

এই বিভাগের আরো খবর