বৃহস্পতিবার   ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪   ফাল্গুন ১০ ১৪৩০

আহ কি শান্তি শহরে !

এম সুলতান

প্রকাশিত: ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  


প্র্যাচের ডান্ডি খ্যাত নারায়ণগঞ্জ যে জেলা সকলে জেলার লোকের বসবাস। প্রতিদিন এ শহরে প্রায় কয়েক লাখ লোকের চলাচল। যে শহরে যানজট ছিলো নিত্যদিনের সঙ্গী, গত কয়েকদিন আগেও চলাচলের উপযুক্ত ছিলো না শহরে প্রধান সড়ক গুলোতে। ফুটপাত দিয়ে হাঁটতে গেলে এক জনের সাথে আরেক জনের শরীরে মিলে থাকতো আর ফুটপাতে দুইপাশ ছিলো হকারদের দখলে।

 

 

গত কয়েকদিনে বদলে গেছে নারায়ণগঞ্জ শহরে চিত্র । বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ শহরের সড়কগুলো দেখলে মনে হয় যেন কোন ভিআইপি এলাকা, যেখানে নেই কোন ধরণের যানজট বা ফুটপাতে হকার।

 


নারায়ণগঞ্জের দীর্ঘ দিনের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য গত শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের আয়োজনে শহরের যানজট ও ফুটপাত দখল সমস্যা সমাধানে এক গোল টেবিল বৈঠকের অনুষ্ঠিত হয়। যাতে নারায়ণগঞ্জ এমপি, মেয়র, চেয়ারম্যান, জেলা প্রশাসক, জেলা পুলিশ সুপার, র‌্যাব-১১ অধিনায়ক সহ সকলে মিলে নারায়ণগঞ্জ শহরের হকার ও যানজট মুক্ত করার ঘোষণা দেন।

 

 

তাদের দেওয়া প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার আমির খসরুর নেতৃত্বে শহরের প্রধান সড়কগুলোতে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

 


শহরের চাষাড়া মোড়ের অবৈধ গাড়ির স্টান, বঙ্গবন্ধু সড়ক, কালিবাজার, পুরানো কোট এলাকা, মীরজুমলা সড়ক , সলিমুল্লা সড়ক ও দুই নং রেল গেইট এবং ফলপট্টি এলাকা সহ শহরের প্রধান সড়ক গুলোতে অবৈধ ভাবে দখলকারীদের উচ্ছেদে নারায়ণগঞ্জ সিটি করর্পোরেশন ও জেলা পুলিশের যৌথ অভিযান পরিচালনা করেন।

 


‘ভাই, আহ কি শান্তি ! এ শহরে মনে হয় কোন ভিআইপি এলাকায় আছি। নেই কোন যানজট, নেই সড়কের ফুটপাটগুলোতে হকার। মানুষ সাভাবিক ভাবে চলাফেলা করছে। কত সুন্দর লাগছে আমাদের চিরচেনা নারায়ণগঞ্জ শহরকে। মনে হয় আমরা আরো ১৫/২৫ বছর পূর্বের নারায়ণগঞ্জ শহরে আছি। যেখানে সাধারণ মানুষ যে যার মত করে চলাচল করতো।

 

 

নারায়ণঞ্জের জনপ্রতিনিধিরা অনেক দিন পরে নারায়ণগঞ্জবাসীর মনে কথা বুঝতে পেরেছে বলে মনে হচ্ছে, এমনই মন্তব্য করেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করর্পোরেশনের ১৩ নং ওয়ার্ডবাসী মো. আকাশ।

 


এসময় তিনি আরো বলেন, তবে বিগত দুদিন ধরে দেখা যাচ্ছে না চাষাড়া চত্বরের যানজটের মূলহোতা মৌমিতা পরিবহনকে। ফলে চাষাড়া চত্বর পুরোই ফাঁকা। নেই দৈনন্দিন জীবনের চিরচেনা যানজট। এতে করে দুদিন যাবৎ স্বস্তিতে শহরে চলাচল করছে সাধারণ মানুষ। স্বাভাবিকভাবেই চলাচল করছে যানবাহনগুলো।

 

 

বহুদিন পরে ট্রাফিক পুলিশ তাদের সঠিক দায়িত্ব পালন করছেন। চাষাড়া চত্বরের আশপাশে কোনো যানবাহনকে অবৈধভাবে পার্কিং করতে দিচ্ছে না। আর ঢাকাগামী বাস গুলো নিয়ম মেনে চাষাড়া চত্বরে যাত্রী উঠানামা করছে।   এন. হুসেইন রনী  /জেসি

এই বিভাগের আরো খবর